সীমাখালী বাজার হত্যাকাণ্ড, মাগুরা/Shimakhali Bazar Genocide

সীমাখালী বাজার গণহত্যা:

রজব আলী নামে একজন পাটনি ছিলেন যিনি চিত্রা নদীতে ঘাট পারাপার করতেন। মুক্তিযোদ্ধাদেরকে পারাপার করার অপরাধে ১৫ আগস্ট তাকে রাজাকাররা জবাই করে হত্যা করে নদীতে ফেলে দেয়। 

 

আশ্বিন মাসে নদীর পাড়ে বসে কাজ করা অবস্থায় রিজিয়া এবং হারেছ বিশ্বাসের মেয়ে সায়রাকে ধরে আনে, সীমাখালী বাজারের পশ্চিম পাশে নিম তলায় শ্মশান ঘাটে নিয়ে যেয়ে গুলি করে হত্যা করে চিত্রা নদীতে ভাসিয়ে দেয়।

 

 শ্রাবণ মাসের দিকে দুলাল বিশ্বাস এবং মকসেদ নামে দুজনকে প্রেমচারা গ্রামে নিয়ে যেয়ে গুলি করে। কিন্তু তারা তখনও মারা যায় নি। তাদের দুজনকে একসাথে বেঁধে নদীতে ভাসিয়ে দেয়। ভেসে যাওয়ার সময় ইনসার মোল্লা নামে একজন রাজাকার তাকে দেখতে পায়, তখন কমান্ডারের অনুমতি নিয়ে গাছি দা দিয়ে ১ কোপে তাদের ভুড়ি বের করে দেয়। সেই অবস্থায় তারা মারা যায়। 

 

*********************

Shimakhali Bazar Genocide

The Razakar had slaughted a waterman named Rajab Ali for helping the freedom fighters and thrown his body in the river on 15 August.

They took two girls named Rizia and Sayra, and shot them at the west side of the Simakhali then thrown their bodies in the river.

At the end of the August, Dulal Biswas and Moksed were taken to Premchara village and shot. But they were still alive. They were tied together and thrown away into the river. A razakar named Insar Molla saw them floating alive and killed them with chopper.

নিকটবর্তী আরও স্থান
  • post-image
    সীমাখালী বাজার হত্যাকাণ্ড, মাগুরা/Shimakhali Bazar Genocide
    <p>সীমাখালী বাজার গণহত্যা:</p> <p>রজব আলী নামে একজন পাটনি ছিলেন যিনি চিত্রা নদীতে ঘাট পারাপার করতেন। মুক্তিযোদ্ধাদেরকে পারাপার করার অপরাধে ১৫ আগস্ট তাকে রাজাকাররা জবাই করে হত্যা করে নদীতে ফেলে দেয়।&nbsp;</p> <p>&nbsp;</p> <p>আশ্বিন মাসে নদীর পাড়ে বসে কাজ করা অবস্থায় রিজিয়া এবং হারেছ বিশ্বাসের মেয়ে সায়রাকে ধরে আনে, সীমাখালী বাজারের পশ্চিম পাশে নিম তলায় শ্মশান ঘাটে নিয়ে যেয়ে গুলি করে হত্যা করে চিত্রা নদীতে ভাসিয়ে দেয়।</p> <p>&nbsp;</p> <p>&nbsp;শ্রাবণ মাসের দিকে দুলাল বিশ্বাস এবং মকসেদ নামে দুজনকে প্রেমচারা গ্রামে নিয়ে যেয়ে গুলি করে। কিন্তু তারা তখনও মারা যায় নি। তাদের দুজনকে একসাথে বেঁধে নদীতে ভাসিয়ে দেয়। ভেসে যাওয়ার সময় ইনসার মোল্লা নামে একজন রাজাকার তাকে দেখতে পায়, তখন কমান্ডারের অনুমতি নিয়ে গাছি দা দিয়ে ১ কোপে তাদের ভুড়ি বের করে দেয়। সেই অবস্থায় তারা মারা যায়।&nbsp;</p> <p>&nbsp;</p> <p>*********************</p> <p><span style="font-family: 'Times New Roman', serif; font-size: 14pt; text-align: justify; text-indent: -0.25in;">Shimakhali Bazar Genocide</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Times New Roman','serif';">The Razakar had slaughted a waterman named Rajab Ali for helping the freedom fighters and thrown his body in the river on 15 August.</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Times New Roman','serif';">They took two girls named Rizia and Sayra, and shot them at the west side of the Simakhali then thrown their bodies in the river. </span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Times New Roman','serif';">At the end of the August, Dulal Biswas and Moksed were taken to Premchara village and shot. But they were still alive. They were tied together and thrown away into the river. A razakar named Insar Molla saw them floating alive and killed them with chopper. </span></p>
  • post-image
    সীমাখালী বাজার রাজাকার ক্যাম্প ও নির্যাতন কেন্দ্র, মাগুরা/Seemakhali Bazar Torture Center and Camp of Razakar forces, Magura
    <p>সীমাখালী বাজার রাজাকার ক্যাম্প ও নির্যাতন কেন্দ্র&nbsp;</p> <p>সীমাখালী হাইস্কুলের পেছনে অবস্থিত ডাকবাংলোটি ছিল পাকিস্তান সেনাবাহিনীর ক্যাম্প। এখানেই বিভিন্ন এলাকা থেকে নিরীহ মুক্তিকামী মানুষকে ধরে এনে অকথ্য নির্যাতন করা হতো। নির্যাতন শেষে পাশে প্রবাহিত প্রখ্যাত চিত্রা নদীর পাড়ে নিমতলা শ্মশান ঘাটে নিয়ে হত্যা করে নদীতে ভাসিয়ে দিতো।&nbsp;&nbsp;</p> <p>&nbsp;</p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Times New Roman','serif';">Seemakhali Bazar Torture Center and Camp of Razakar forces, Magura</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Times New Roman','serif';">The Dakbungalow behind Seemakhali High School was the camp of the Pakistani Army. Several innocent people from different areas were taken and were tortured here. Later, they were killed at Nimtala Swashan and were dumped to the river.</span></p>
  • post-image
    শতখালী-সিংহেশ্বর পাড়া গণকবর, মাগুরা/ Shatkhali-Singheshwar Para Mass Grave, Magura
    <p>শতখালী-সিংহেশ্বর পাড়া গণকবর&nbsp;</p> <p>আড়পাড়া থেকে পশ্চিমে যশোরের দিকে যেতে শতখালী ইউনিয়নে শতখালী বাজারের পাশে সিংহেশ্বর পাড়ায় ঢাকা যশোর রোডে লোহার ব্রীজে যে গণহত্যা সংগঠিত হয় সেই সব শহিদের হাড়গোড় যত্র তত্র পড়ে থাকতে দেখা যায়।&nbsp; সেই সব হাড়গোড় স্থানীয় জনগণ মাটি চাপা দেয়।&nbsp;</p> <p>&nbsp;</p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Times New Roman','serif';">Shatkhali-Singheshwar Para Mass Grave, Magura</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Times New Roman','serif';">A massive genocide had been perpetrated beside the Shatkhali market in Singheshwar Para. On the Iron Bridge at Dhaka Jessore Road, piles of bone of the martyrs were seen here and there. The local people grounded those bones.</span></p> <div id="gtx-trans" style="position: absolute; left: 15px; top: 50px;">&nbsp;</div>
  • post-image
    শতখালী-সিংহেশ্বর পাড়া গণহত্যা, মাগুরা/Shatkhali-Singheshwar Para Genocide
    <p>শতখালী-সিংহেশ্বর পাড়া গণহত্যা&nbsp;</p> <p>মুক্তিযুদ্ধের সময় লোহার ব্রিজে (বর্তমানে এই ব্রিজটি পাকা করা হয়েছে) টহলরত পাকিস্তানি সেনারা ৮ জন মুক্তিযোদ্ধাকে ধরে নিয়ে আসে। পরিচয় নেয়ার পর দুজনকে ছেড়ে দেয়। বাকি ৬ জনকে গুলি করে নির্মমভাবে হত্যা করে। শতখালী গ্রামের অধিবাসী চান্দ আলী বিশ্বাস এই হত্যাযজ্ঞের একজন প্রত্যক্ষদর্শী। সেদিন যারা শহিদ হয়েছিলেন তারা হলেন দেশমুখপাড়ার মান্নাফ, মমিন, রউফ ও পান্নু, শরশুনার কুদ্দুস। অপর একজনের নাম জানা যায় নি।&nbsp;</p> <p>&nbsp;</p> <p><span style="font-family: 'Times New Roman', serif; font-size: 14pt; text-align: justify; text-indent: -0.25in;">Shatkhali-Singheshwar Para Genocide</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Times New Roman','serif';">During the Liberation War, the Pakistani army captured 8 freedom fighters on the Iron Bridge. After cheaking, they let two of them to leave and killed the rest. Those who were martyred on that day are Manaf, Momin, Rauf and Pannu. The other names were not known.</span></p>
  • post-image
    প্রেমচারা গ্রাম গণহত্যা/ Premchara village Genocide
    <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush;" lang="BN">বাঘারপাড়া উপজেলার ২নং বন্দবিলা ইউনিয়নের প্রেমচারা গ্রামের অসংখ্য মানুষকে হত্যা করে এই এলাকার রাজাকাররা। প্রেমচারা গ্রামের রাজাকার আমজেদ মোল্লা ও কায়েম আলীর নেতৃত্বে এই গণহত্যা সংঘটিত হয়। রাজাকার বাহিনীতে আরও ছিল নওশের</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush;">, <span lang="BN">ইদ্রিস</span>, <span lang="BN">সবুর বিশ্বাস </span>, <span lang="BN">দলিল উদ্দীন</span>, <span lang="BN">মোজাহার বিশ্বাস</span>, <span lang="BN">আহমদ আলী</span>, <span lang="BN">মতিয়ার</span>, <span lang="BN">দাউদ</span>, <span lang="BN">গফুর</span>, <span lang="BN">সোবহান</span>, <span lang="BN">লিয়াকত</span>, <span lang="BN">আজিবর</span>, <span lang="BN">সিদ্দিক হোসেনসহ আরো অনেকে। এই বাহিনী অসংখ্য মানুষকে হত্যা করেছে । তারা চানপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা নওশেরের মা ও বাবাকে গুলি করে হত্যা করেছিল। বিভিন্ন এলাকার সাতজন মুক্তিযোদ্ধাকে কৌশলে ধরে তাদেরকে হত্যা করে লাশ পাতকুয়োর মধ্যে ফেলে দেয়। খোকন ও তার বাবাকে তারা হত্যা করে লাশ নদীতে ফেলে দেয়। এই রাজাকার বাহিনী বন্দবিলা হাইস্কুলের তৎকালীন প্রধান শিক্ষক সিরাজুল ইসলাম</span>, <span lang="BN">ছাত্র সাখাওয়াতকে ঘুমন্ত অবস্থায় গুলি করে হত্যা করে। একইভাবে তারা হত্যা করে আবুল মন্ডল</span>, <span lang="BN">রুহুল ও আফসার</span>; <span lang="BN">গাইদ ঘাটার সুরত আলী</span>, <span lang="BN">মুক্তার আলী</span>; <span lang="BN">আড়োকান্দির মান্নান</span>, <span lang="BN">পিয়ারপুরের চাঁদ আলী ও তার স্ত্রী এবং রজব</span>; <span lang="BN">উত্তর চাঁদপুরের আয়নাল</span>, <span lang="BN">নিমটার তারাপদের স্ত্রীসহ অসংখ্য মানুষকে। এর পাশাপাশি এই বাহিনীর সদস্যরা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের এবং হিন্দু সম্প্রদায়ের শতশত ঘরবাড়িতে লুটতরাজ এবং<span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp; </span>অগ্নিসংযোগ করেছিল। বহু নারীকে ধরে এনে তারা দিনের পর দিন ধর্ষণ ও হত্যা করেছে। আমজেদ মোল্লা ও কায়েম আলীর নেতৃত্বে এই দুর্ধর্ষ বিশাল রাজাকার বাহিনী কমপক্ষে ১০টি গণহত্যার মাধ্যমে শতাধিক মানুষকে হত্যা করেছে।</span></span></p> <p class="MsoNormal">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush;">*** </span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush;">The Razakars had killed many people in Premchara village of 2 no Bandobila union of Bagharpara Upazila. The genocide took place under the leadership of Razakar Amjad Molla and Quaim Ali of Premchara village. They had killed the mother and father of freedom fighter Nausher of Chandpur village and many others. They had also killed 7 freedom fighters from different areas and dumped their bodies in the well. They had also killed many others including Khokon and his father, headmaster Sirajul Islam, his student Sakhawat. Besides, the Razakars looted and burnt down hundreds of houses of the freedom fighters and the Hindu community. Many women were raped, and then killed. </span></p>
  • post-image
    নারিকেলবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় নিযার্তন কেন্দ্র
    <p class="MsoNormal" style="margin-bottom: .0001pt; text-align: justify; line-height: normal;"><span style="font-size: 12.0pt; font-family: SutonnyMJ; mso-bidi-font-family: SutonnyMJ; mso-bidi-font-weight: bold;">GB wbh&copy;vZb &dagger;K&Dagger;&rsaquo;`&ordf; &macr;&rsquo;vbxq ivRvKviiv gyw&sup3;&Dagger;hv&times;v, gyw&sup3;&Dagger;hv&times;vi AvZ&yen;xq &macr;^Rb&Dagger;K a&Dagger;i G&Dagger;b wbg&copy;g wbh&copy;vZb Ki&Dagger;Zv| AmsL&uml; gvbyl&Dagger;K GLv&Dagger;b wbh&copy;vZb Kiv n&Dagger;q&Dagger;Q| &dagger;&yuml;&Icirc;cvjv M&Ouml;v&Dagger;gi AvwRR Avn&Dagger;g` wek^vm I Avikv` Avjx wek^vm lv&Dagger;Uva&Yuml;&copy; `yBfvB GjvKvi hyeK&Dagger;`i gyw&sup3;hy&Dagger;&times; AskM&Ouml;n&Dagger;Yi Rb&uml; msMwVZ Ki&Dagger;Zv| ivRvKviiv Zv&Dagger;`i a&Dagger;i wb&Dagger;q H wbh&copy;vZb &dagger;K&Dagger;&rsaquo;`&ordf; &dagger;i&Dagger;L &dagger;e`g c&Ouml;nvi K&Dagger;i e&macr;&Iacute;vi g&Dagger;a&uml; XzwK&Dagger;q &dagger;eI&Dagger;bU PvR&copy; K&Dagger;i cvkweK wbh&copy;vZb Pvwj&Dagger;q nZ&uml;v K&Dagger;i| c&Ouml;vqB iv&Dagger;Z GB wbh&copy;vZb &dagger;K&Dagger;&rsaquo;`&ordf; AK_&uml; AZ&uml;vPvi I wbh&copy;vZb Kiv n&Dagger;Zv| `~i &dagger;_&Dagger;K Zv&Dagger;`i AvZ&copy;wPrKvi &iuml;b&Dagger;Z &dagger;cZ &macr;&rsquo;vbxq &dagger;jvKRb|</span></p> <p class="MsoNormal" style="margin-bottom: .0001pt; line-height: normal;"><span style="font-size: 12.0pt; font-family: SutonnyMJ; mso-bidi-font-family: SutonnyMJ; mso-bidi-font-weight: bold;">&nbsp;</span></p>
  • post-image
    নারিকেলবাড়িয়া বহুমুখী উচ্চবিদ্যালয় বধ্যভূমি/ Narikelbaria High School Mass Killing Site
    <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;" lang="BN-BD">৪ নং নারিকেলবাড়িয়া ইউনিয়নের বাজারের পাশে নারিকেলবাড়িয়া হাইস্কুল ভবনটি ছিল রাজাকার ক্যাম্প। এই ক্যাম্পে </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">রাজাকাররা </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;" lang="BN-BD">বাঘারপাড়ার বিভিন্ন জায়গা থেকে স্বাধীনতাকামী বাঙালি</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;">, <span lang="BN-BD">মুক্তিযোদ্ধাদের পরিবারের সদস্য ও অন্যান্য নিরীহ মানুষদের ধরে এনে অকথ্য নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করতো। এই বধ্যভূমিতে প্রায় ২০০ জনকে হত্যা করেছে রাজাকাররা। </span></span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;" lang="BN-BD"><span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span></span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;" lang="BN-BD"><span style="mso-spacerun: yes;">***</span></span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;">T</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;">here was a Razakar camp at the Narikelbaria High School building, next to Narkelbaria Union Market. In this camp, freedom fighters, libertarian Bangalis and other innocent people were taken from various places then tortured and killed by Razakars. Razakars have killed nearly 200 people in this mass killing site. </span></p>
  • post-image
    পুরানো শালিখা থানা চত্তর গণহত্যা, মাগুরা/Old Shalikha Poilice Station Genocide, Magura
    <p>পুরানো শালিখা থানা চত্তর গণহত্যা</p> <p>আড়পাড়ায় পাকিস্তানি বাহিনী ক্যাম্প প্রতিষ্ঠা করার ৩ দিন পর পাকিস্তানি সেনারা শালিখা থানায় ক্যাম্প প্রতিষ্ঠা করে। এই ক্যাম্পটি একই সাথে একটি বধ্যভূমি। এখানে পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন গ্রাম থেকে নিরীহ মানুষ ধরে এনে থানার পাশে চিত্রা নদীর তীরে অবস্থিত তালগাছ তলায় গুলি করে হত্যা করে নদীতে ভাসিয়ে দিত। আগস্ট মাসে হাজরাহাটির কওছার, শতপাড়ার আলতাফ হোসেনকে ও শরশুনা থেকে আরও ৭ জনকে রাজাকাররা ধরে আনে। সকলকে একসাথে শালিখা থানার পাশে নিয়ে গুলি করে হত্যা করে চিত্রা নদীতে ভাসিয়ে দেয়।&nbsp;</p> <p>&nbsp;</p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Times New Roman','serif';">Old Shalikha Poilice Station Genocide, Magura</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Times New Roman','serif';">The Pakistani army set up camp in Salikha police station Arpara after 3 days of setting up camp at Arpara. At the same time, this camp was a mass killing site. They used to bring innocent people from different villages here and shot them on the bank of the Chitra River. The Pakistani army and Razakar killed 7 people and floated them in the Chitra River.</span></p>
  • post-image
    পুরনো শালিখা থানা নির্যাতন কেন্দ্র, মাগুরা/ Old Shalikha Poilice Station Maas Killing Site, Magura
    <p>পুরনো শালিখা থানা নির্যাতন কেন্দ্র</p> <p>১৯৭১ সালে শালিখা থানার পুরানো ক্যাম্পে নির্যাতন কেন্দ্র ছিল। এই ক্যাম্পে আশপাশের গ্রাম থেকে মানুষ ধরে এনে নির্যাতন করা হতো। বিভিন্ন বাড়িতে আগুন দেয়া হতো। শতপাড়া গ্রামের তছির মোল্লাকে জমিতে কাজ করার সময় ধরে এনে শালিখা থানা ক্যাম্পে নির্যাতন করে হত্যা করে। তার বাড়িতে আগুন লাগিয়ে পুড়িয়ে দেয়। তছির মোল্লার ভগ্নিপতিকেও একই দিনে ধরে এনে নির্যাতন করে হত্যা করে।&nbsp;&nbsp;</p> <p>&nbsp;</p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Times New Roman','serif';">Old Shalikha Poilice Station Maas Killing Site, Magura</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Times New Roman','serif';">The Pakistani army set up camp in Salikha police station Arpara after 3 days of setting up camp at Arpara. At the same time, this camp was a mass killing site. They used to bring innocent people from different villages here and shot them on the bank of the Chitra River. The Pakistani army and Razakar killed 7 people and floated them in the Chitra River.</span></p> <div id="gtx-trans" style="position: absolute; left: -5px; top: 114px;">&nbsp;</div>
  • post-image
    পুরানো শালিখা থানা চত্তর বধ্যভূমি, মাগুরা/ Old Shalikha Poilice Station Killing Site, Magura
    <p>পুরানো শালিখা থানা চত্তর বধ্যভুমি</p> <p>আড়পাড়ায় পাকিস্তানি বাহিনী ক্যাম্প প্রতিষ্ঠা করার ৩ দিন পর পাকিস্তানি সেনারা শালিখা থানায় ক্যাম্প প্রতিষ্ঠা করে। এই ক্যাম্পটি একই সাথে একটি বধ্যভূমি। এখানে পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন গ্রাম থেকে নিরীহ মানুষ ধরে এনে থানার পাশে চিত্রা নদীর তীরে অবস্থিত তালগাছ তলায় গুলি করে হত্যা করে নদীতে ভাসিয়ে দিত। আগস্ট মাসে হাজরাহাটির কওছার, শতপাড়ার আলতাফ হোসেনকে ও শরশুনা থেকে আরও ৭ জনকে রাজাকাররা ধরে আনে। সকলকে একসাথে শালিখা থানার পাশে নিয়ে গুলি করে হত্যা করে চিত্রা নদীতে ভাসিয়ে দেয়।&nbsp;</p> <p>&nbsp;<span style="font-family: 'Times New Roman', serif; font-size: 14pt; text-align: justify;">Old Shalikha Poilice Station Killing Site, Magura</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Times New Roman','serif';">The Pakistani army set up camp in Salikha police station Arpara after 3 days of setting up camp at Arpara. At the same time, this camp was a mass killing site. They used to bring innocent people from different villages here and shot them on the bank of the Chitra River. The Pakistani army and Razakar killed 7 people and floated them in the Chitra River.</span></p>