পাকশী রেল কলোনি গণহত্যা, পাবনা

১৯৭১ সালের ১২ এপ্রিল যখন পাকিস্তানি সৈন্য পাকশীতে হামলা করে তখন তাদের সহায়তা করেছিলো বিহারিরা। পাকশি রেল কলোনি হামলায় ঐ দিন প্রায় ১৫ থেকে ২০ জন শহিদ হন। এরা ছিলেন- রেল কর্মচারী ইয়াকুব আলী, আব্দুল লতিফ, আব্দুল লতিফের দুই ভাই, পাকশী হাসপাতালের আরএস ও তাঁর পরিবারের সকল সদস্য, যুক্তিতলার ব্যবসায়ী জয়েন উদ্দিনসহ আরও অনেকে। এদিনের এই অবস্থা এতই ভয়াবহ ছিলো যে তাদের লাশ দাফন করার কোন লোক ছিলো না। পরে যখন পাকিস্তান বাহিনী চলে যায় তখন সুইপার কলোনির সুইপাররা লাশগুলো পুতে রাখে।  

নিকটবর্তী আরও স্থান
  • post-image
    পাকশী রেল কলোনি বধ্যভূমি, পাবনা
    <p><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Nirmala UI','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">পাকশী রেল কলোনি বধ্যভূমি</span><span style="font-size: 12.0pt; line-height: 115%; font-family: SutonnyMJ; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-bidi-font-family: 'Times New Roman'; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: AR-SA;">, </span><span style="font-size: 12.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Vrinda','sans-serif'; mso-ascii-font-family: SutonnyMJ; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-hansi-font-family: SutonnyMJ; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">পাবনা</span></p> <p><span style="font-size: 12.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Vrinda','sans-serif'; mso-ascii-font-family: SutonnyMJ; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-hansi-font-family: SutonnyMJ; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: BN;" lang="BN"><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Nirmala UI','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">দক্ষিণ বঙ্গ ও উত্তর বঙ্গের সংযোগস্থল হল পাকশী। ১৯৭১ সালে ঈশ্বরদীর পাকশীতে অনেক বিহারীর বসবাস ছিলো। ১৯৭১ সালের ১২ এপ্রিল যখন পাকিস্তানি সৈন্য পাকশীতে হামলা করে তখন তাদের সহায়তা করেছিলো এই বিহারিরা। আর এতেই পাকশি রেল কলোনি বধ্যভূমিতে পরিণত হয়। পাকশি রেল কলোনি হামলায় ঐ দিন প্রায় ১৫ থেকে ২০ জন শহিদ হন। এরা ছিলেন- রেল কর্মচারী ইয়াকুব আলী</span><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Nirmala UI','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: AR-SA;">, </span><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Nirmala UI','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">আব্দুল লতিফ</span><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Nirmala UI','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: AR-SA;">, </span><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Nirmala UI','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">আব্দুল লতিফের দুই ভাই</span><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Nirmala UI','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: AR-SA;">, </span><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Nirmala UI','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">পাকশী হাসপাতালের আরএস ও তাঁর পরিবারের সকল সদস্য</span><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Nirmala UI','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: AR-SA;">, </span><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Nirmala UI','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">যুক্তিতলার ব্যবসায়ী জয়েন উদ্দিনসহ আরও অনেকে। এদিনের এই অবস্থা এতই ভয়াবহ ছিলো যে তাদের লাশ দাফন করার কোন লোক ছিলো না। পরে যখন পাকিস্তান বাহিনী চলে যায় তখন সুইপার কলোনির সুইপাররা পনির ট্যাংকির নিচে লাশগুলো পুতে রাখে।</span></span></p> <p><span style="font-size: 12.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Vrinda','sans-serif'; mso-ascii-font-family: SutonnyMJ; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-hansi-font-family: SutonnyMJ; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: BN;" lang="BN"><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Nirmala UI','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: BN;" lang="BN"><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Calibri','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-bidi-font-family: 'Times New Roman'; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: AR-SA;">Pakshi is the junction of South Bengal and North Bengal. In 1971, many Biharis used to in Ishwardi's Pakshi. These Biharis helped the Pakistani army while attacking Pakshi on 12 April 1971. They turned the Pakshi Railway Colony a mass killing site. About 15 to 20 people were martyred on that day. They were Yaqub Ali, a railway employee, Abdul Latif, Abdul Latif's two brothers, RS of Pakshi Hospital, and all his family members, Zain Uddin, a businessman from Phoolitala and many others. The situation today was so dire that there was no one to bury the bodies. Later, when the Pakistani forces left, the sweepers of the Sweeper Colony put the bodies under the water tank.</span></span></span></p>
  • post-image
    পাকশি রেল কলোনি গণকবর, পাবনা
    <p class="MsoNormal"><span style="font-family: 'Vrinda','serif'; mso-ascii-font-family: Calibri; mso-ascii-theme-font: minor-latin; mso-hansi-font-family: Calibri; mso-hansi-theme-font: minor-latin; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">&nbsp;</span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-family: 'Vrinda','serif'; mso-ascii-font-family: Calibri; mso-ascii-theme-font: minor-latin; mso-hansi-font-family: Calibri; mso-hansi-theme-font: minor-latin; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">১৯৭১ সালের ১২ এপ্রিল যখন পাকিস্তানি সৈন্য পাকশীতে হামলা করে তখন তাদের সহায়তা করেছিলো এই বিহারিরা। <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span>পাকশি রেল কলোনি হামলায় ঐ দিন প্রায় ১৫ থেকে ২০ জন শহিদ হন। <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span>এদিনের এই অবস্থা এতই ভয়াবহ ছিলো যে তাদের লাশ দাফন করার কোন লোক ছিলো না। পরে যখন পাকিস্তান বাহিনী চলে যায় তখন সুইপার কলোনির সুইপাররা পানির ট্যাংকির নিচে লাশগুলো পুতে রাখে।</span></p>
  • post-image
    পাকশী রেল কলোনি গণহত্যা, পাবনা
    <h1>১৯৭১ সালের ১২ এপ্রিল যখন পাকিস্তানি সৈন্য পাকশীতে হামলা করে তখন তাদের সহায়তা করেছিলো বিহারিরা। পাকশি রেল কলোনি হামলায় ঐ দিন প্রায় ১৫ থেকে ২০ জন শহিদ হন। এরা ছিলেন- রেল কর্মচারী ইয়াকুব আলী, আব্দুল লতিফ, আব্দুল লতিফের দুই ভাই, পাকশী হাসপাতালের আরএস ও তাঁর পরিবারের সকল সদস্য, যুক্তিতলার ব্যবসায়ী জয়েন উদ্দিনসহ আরও অনেকে। এদিনের এই অবস্থা এতই ভয়াবহ ছিলো যে তাদের লাশ দাফন করার কোন লোক ছিলো না। পরে যখন পাকিস্তান বাহিনী চলে যায় তখন সুইপার কলোনির সুইপাররা লাশগুলো পুতে রাখে।&nbsp;&nbsp;</h1>
  • post-image
    হার্ডিঞ্জ ব্রিজ বধ্যভূমি, পাবনা/ Hardinge bridge Mass killing Site
    <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;" lang="BN-BD">পাবনা জেলার ঈশ্বরদী উপজেলার যতগুলো বধ্যভুমি রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম ও জঘন্য হল পাকশির হার্ডিঞ্জ ব্রিজ</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Mangal',serif; mso-ascii-font-family: Kalpurush; mso-hansi-font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: HI;" lang="HI">।</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;"><span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span></span><span style="font-size: 14pt; line-height: 21.4667px; font-family: Kalpurush;"><span lang="BN-BD">মুক্তিযুদ্ধ শেষ হওয়ার পরেও&nbsp;</span></span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;"><span lang="BN-BD">পাকশি হার্ডিঞ্জ ব্রিজের নিচে সেতুর দুদিকেই অসংখ্য মানুষের কঙ্কাল</span>, <span lang="BN-BD">মাথার খুলি</span>, <span lang="BN-BD">শাড়ি</span>, <span lang="BN-BD">জুতা পাওয়া গিয়েছিল</span></span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Mangal',serif; mso-ascii-font-family: Kalpurush; mso-hansi-font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: HI;" lang="HI">।</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;">&nbsp;<span lang="BN-BD">দীর্ঘ সেতুর প্রতিটি বিশাল স্পানের ভেতরে ও নিচে গাদা গাদা মেয়েদের শাড়ি</span>, <span lang="BN-BD">নরকঙ্কাল</span>, <span lang="BN-BD">মাথার খুলি দেখে সহজেই অনুমান করা যায় সেতুর দুইদিকের এসব স্প্যানে শত শত নারীকে ধরে এনে অত্যাচার করে হত্যা করা হয়েছে</span>।</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: left;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;">***&nbsp;</span></p> <p><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-theme-font: minor-bidi; mso-bidi-language: BN-BD;">Hardinge bridge of Pakshi is one of the most heinous among all the mass killing sites of Ishwardi Upazila in Pabna district.</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-theme-font: minor-bidi; mso-bidi-language: BN-BD;"> Many skeletons, skulls, clothes, shoes were left under the</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Times New Roman',serif; mso-bidi-language: BN-BD;">&nbsp;</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-theme-font: minor-bidi; mso-bidi-language: BN-BD;">both sides of </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Times New Roman',serif; mso-bidi-language: BN-BD;">Pakshi</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-theme-font: minor-bidi; mso-bidi-language: BN-BD;"> Hardinge Bridge, even after the war was ended. Hundreds of women were tortured here and their skeletons and belongings were found here.</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Times New Roman',serif; mso-bidi-language: BN-BD;">&nbsp;</span></p> <p>&nbsp;</p>
  • post-image
    হার্ডিঞ্জ ব্রিজ নির্যাতন কেন্দ্র, পাবনা
    <p><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Vrinda','sans-serif'; mso-ascii-font-family: Calibri; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-hansi-font-family: Calibri; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">হার্ডিঞ্জ ব্রিজ নির্যাতন কেন্দ্র</span><span style="font-size: 12.0pt; line-height: 115%; font-family: SutonnyMJ; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-bidi-font-family: 'Times New Roman'; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: AR-SA;">, </span><span style="font-size: 12.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Vrinda','sans-serif'; mso-ascii-font-family: SutonnyMJ; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-hansi-font-family: SutonnyMJ; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">পাবনা</span></p> <p><span style="font-size: 12.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Vrinda','sans-serif'; mso-ascii-font-family: SutonnyMJ; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-hansi-font-family: SutonnyMJ; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: BN;" lang="BN"><span style="font-size: 11pt; line-height: 115%;" lang="BN">পাবনা জেলার ঈশ্বরদী উপজেলার যতগুলো নির্যাতন কেন্দ্র রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম ও জঘন্য নির্যাতন কেন্দ্র হল পাকশির হার্ডিঞ্জ ব্রিজ। পাকশি হার্ডিঞ্জ ব্রিজের নিচে সেতুর দুদিকেই অসংখ্য মানুষের কঙ্কাল</span><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Calibri','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-bidi-font-family: 'Times New Roman'; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: AR-SA;">, </span><span style="font-size: 11pt; line-height: 115%;" lang="BN">মাথার খুলি</span><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Calibri','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-bidi-font-family: 'Times New Roman'; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: AR-SA;">, </span><span style="font-size: 11pt; line-height: 115%;" lang="BN">শাড়ি</span><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Calibri','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-bidi-font-family: 'Times New Roman'; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: AR-SA;">, </span><span style="font-size: 11pt; line-height: 115%;" lang="BN">ব্লাউজ</span><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Calibri','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-bidi-font-family: 'Times New Roman'; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: AR-SA;">, </span><span style="font-size: 11pt; line-height: 115%;" lang="BN">জুতা পরেছিলো মুক্তিযুদ্ধ শেষ হওয়ার পরেও। দীর্ঘ সেতুর প্রতিটি বিশাল </span><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Calibri','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-bidi-font-family: 'Times New Roman'; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: AR-SA;">&macr;</span><span style="font-size: 11pt; line-height: 115%;" lang="BN">প্যানের ভেতরেই ও নিচে গাদা গাদা মেয়েদের শাড়ি</span><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Calibri','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-bidi-font-family: 'Times New Roman'; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: AR-SA;">, </span><span style="font-size: 11pt; line-height: 115%;" lang="BN">নরকঙ্কাল</span><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Calibri','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-bidi-font-family: 'Times New Roman'; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: AR-SA;">, </span><span style="font-size: 11pt; line-height: 115%;" lang="BN">মাথার খুলি দেখে সহজেই অনুমান করা যায় সেতুর দুইদিকের এসব </span><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Calibri','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-bidi-font-family: 'Times New Roman'; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: AR-SA;">&macr;</span><span style="font-size: 11pt; line-height: 115%;" lang="BN">প্যানে দশ জন বিশজন নয় শত শত নারীকে ধরে এনে অত্যাচার করে হত্যা করা হয়েছে।</span></span></p> <p><span style="font-size: 12.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Vrinda','sans-serif'; mso-ascii-font-family: SutonnyMJ; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-hansi-font-family: SutonnyMJ; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: BN;" lang="BN"><span style="font-size: 11pt; line-height: 115%;" lang="BN"><span style="font-size: 11.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Calibri','sans-serif'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-bidi-font-family: 'Times New Roman'; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: AR-SA;">Hardinge Bridge in Pakshi is one of the most notorious torture centers in Ishwardi Upazila of Pabna district. Even after the end of the Liberation War, there were skeletons, skulls, sarees, blouses and shoes under the Pakshi Hardinge Bridge, on both sides of the bridge. In each huge span of the long bridge, there are piles of girls' sarees, skeletons, and skulls. Seeing all of these it is easily understandable that hundreds of women were tortured in this place.&nbsp;</span></span></span></p>
  • post-image
    বাঘইল গণহত্যা, পাবনা
    <h1 class="MsoNormal"><span style="font-family: 'Vrinda','serif'; mso-ascii-font-family: Calibri; mso-ascii-theme-font: minor-latin; mso-hansi-font-family: Calibri; mso-hansi-theme-font: minor-latin; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">১৯৭১ সালের ২৩ এপ্রিল। <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span>এদিন বাঘাইলের মানুষের জীবনে নেমে আসে হায়েনার হিংস্র আঘাত। <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span>বাঘাইলে গণহত্যা পাকিস্তানি সেনাদের সহায়তা করেছিলো স্থানীয় বিহারিরা। <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span>বাঘাইলে ঢুকে নারী-পুরুষ-শিশুসহ যাকে সামনে পেয়েছিলো তাকেই ধরে আনে। <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span>প্রথমেই সব পুরুষদের উলঙ্গ করে পরীক্ষা করে তারা হিন্দু না মুসলমান। <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span>এরপর সবাইকে কলমা পড়িয়ে তওবা করানো হয়। <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span>তারপরেও তারা সকলকে লাইন ধরে দাড় করিয়ে ধ্বংসলীলাই মেতে ওঠে। <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span>মুহুর্মুহু গুলি করতে থাকে তারা।<span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp; </span>১৪২ এসময় প্রায় ২৩ জন নারী-পুরুষ-শিশু হানাদার পাকিস্তানি বাহিনীর হাতে শহিদ হন আর ৬ জন গুলিবিদ্ধ হয়ে বেচে<span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp; </span>যান। যারা শহিদ হন তাদের ২০জনকে একস্থানে গণকবর দেওয়া হয়।</span></h1>
  • post-image
    বাঘইল নতুনপাড়া গণকবর, পাবনা
    <h1><span style="font-family: Vrinda, serif;">১৯৭১ সালের ২৩ এপ্রিল।&nbsp;</span><span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span><span style="font-family: Vrinda, serif;">এদিন বাঘাইলের মানুষের জীবনে নেমে আসে হায়েনার হিংস্র আঘাত।&nbsp;</span><span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span><span style="font-family: Vrinda, serif;">বাঘাইলে গণহত্যা পাকিস্তানি সেনাদের সহায়তা করেছিলো স্থানীয় বিহারিরা।&nbsp;</span><span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span><span style="font-family: Vrinda, serif;">বাঘাইলে ঢুকে নারী-পুরুষ-শিশুসহ যাকে সামনে পেয়েছিলো তাকেই ধরে আনে।&nbsp;</span><span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span><span style="font-family: Vrinda, serif;">প্রথমেই সব পুরুষদের উলঙ্গ করে পরীক্ষা করে তারা হিন্দু না মুসলমান।&nbsp;</span><span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span><span style="font-family: Vrinda, serif;">এরপর সবাইকে কলমা পড়িয়ে তওবা করানো হয়।&nbsp;</span><span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span><span style="font-family: Vrinda, serif;">তারপরেও তারা সকলকে লাইন ধরে দাড় করিয়ে ধ্বংসলীলাই মেতে ওঠে।&nbsp;</span><span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span><span style="font-family: Vrinda, serif;">মুহুর্মুহু গুলি করতে থাকে তারা।</span><span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;&nbsp;</span><span style="font-family: Vrinda, serif;">১৪২ এসময় প্রায় ২৩ জন নারী-পুরুষ-শিশু হানাদার পাকিস্তানি বাহিনীর হাতে শহিদ হন আর ৬ জন গুলিবিদ্ধ হয়ে বেচে</span><span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;&nbsp;</span><span style="font-family: Vrinda, serif;">যান। যারা শহিদ হন তাদের ২০জনকে একস্থানে গণকবর দেওয়া হয়।</span></h1>
  • post-image
    রূপপুর , পাবনা
    <p class="MsoNormal"><span style="font-family: 'Vrinda','serif'; mso-ascii-font-family: Calibri; mso-ascii-theme-font: minor-latin; mso-hansi-font-family: Calibri; mso-hansi-theme-font: minor-latin; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">নতুন রূপপুর ও চর রূপপুর পাশাপাশি দুটি গ্রাম। এ গ্রাম দুটিতে পাকিস্তানি হানাদার নির্মমতার প্রকাশ ঘটে ১৯৭১ সালের ২৫ এপ্রিল রবিবার। এদিনের হামলা ছিলো পরিকল্পিত একটি হামলা। পাকিস্তানি সেনা ও তাদের দোসরদের আগমনে রূপপুর গ্রামবাসী<span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp; </span>দিগবিদিক পালাতে থাকে। এসময় পাকিস্তানিরা যাকে যেখানে পায় ধরে তখনি গুলি করে মারতে থাকে। <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span>রুপপুর গ্রামে এ হত্যাকা</span><span style="font-family: 'Vrinda','serif'; mso-ascii-font-family: Calibri; mso-ascii-theme-font: minor-latin; mso-hansi-font-family: Calibri; mso-hansi-theme-font: minor-latin; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">ন্ডে </span><span style="font-family: 'Vrinda','serif'; mso-ascii-font-family: Calibri; mso-ascii-theme-font: minor-latin; mso-hansi-font-family: Calibri; mso-hansi-theme-font: minor-latin; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">প্রায় ১৩ জন নারী-পুরুষ শহিদ হন। <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span>মাত্র দুই জনের নাম জানা সম্ভব হয়। <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span>এরা হলেন আসগর(৪০) ও আশীতপর(৭০)।<span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp; </span></span></p>
  • post-image
    পাকুরিয়া গণহত্যা, পাবনা
    <p class="MsoNormal"><span style="font-family: 'Vrinda','serif'; mso-ascii-font-family: Calibri; mso-ascii-theme-font: minor-latin; mso-hansi-font-family: Calibri; mso-hansi-theme-font: minor-latin; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">ঈশ্বরদী উপজেলার সাহপুর ইউনিয়নের একটি গ্রাম পাকুরিয়া। ১৯৭১ সালের ২৫ এপ্রিল পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী স্থানীয় দোসরদের সহায়তায় এ গ্রামে প্রবেশ করে অল্পসময়ের মধ্যে স্কুল মাস্টার উম্মেদ আলী মৌলভী সহ পনের-বিশ জনকে হত্যা করে। একই সাথে সমস্ত গ্রাম আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়।</span></p>
  • post-image
    সাহাপুর গণহত্যা, পাবনা
    <p class="MsoNormal"><span style="font-family: 'Vrinda','serif'; mso-ascii-font-family: Calibri; mso-ascii-theme-font: minor-latin; mso-hansi-font-family: Calibri; mso-hansi-theme-font: minor-latin; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">ঈশ্বরদী উপজেলার গণহত্যাগুলোর মধ্যে সাহাপুর গ্রামের গণহত্যা ছিলো খুবই হৃদয়বিদারক। ১৯৭১ সালের ২৫ এপ্রিল পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী অল্পসময়ের আক্রমনে প্রায় দুইশতরও অধীক মানুষকে হত্যা করে। সমস্ত গ্রাম পাকিস্তানি বাহিনী জ্বালিয়ে দেয়। এদিন যারা নিহত হন তাদের মধ্যে রয়েছে গ্যাদা মিস্ত্রি</span>, <span style="font-family: 'Vrinda','serif'; mso-ascii-font-family: Calibri; mso-ascii-theme-font: minor-latin; mso-hansi-font-family: Calibri; mso-hansi-theme-font: minor-latin; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">আরশেদ</span>, <span style="font-family: 'Vrinda','serif'; mso-ascii-font-family: Calibri; mso-ascii-theme-font: minor-latin; mso-hansi-font-family: Calibri; mso-hansi-theme-font: minor-latin; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">বদি খন্দকার (মহাদেবপুর) ও তাঁর ছেলেসহ নাম না জানা আরও অনেক। </span></p>