ঝিকরগাছা রাজাকার ক্যাম্প/ Jhikargachha Razakar camp

ঝিকরগাছা বাজারের ভিতরে ছাগল পট্টির কাছে ডাক্তার সুবাস বাবুর বাড়িতে ঝিকরগাছা রাজাকার ক্যাম্প ছিল। সুবাস বাবুর দোতলা বাড়ির নিচতলায় ছিল তাঁর ডাক্তারখানা ও ঔষধের দোকান। আর দোতলায় তিনি সপরিবারে  বাস করতেন। মুক্তিযুদ্ধে শুরুর পর অত্যাচারের ভয়ে বাড়ি ছেড়ে তিনি সপরিবারে ভারতে চলে যান। স্থানীয় রাজাকাররা সুবাস বাবুর পরিত্যক্ত বাড়ি দখল করে সেখানেই তাদের ক্যাম্প করে। রাজাকারদের ঐ ক্যাম্পে প্রতিদিন মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের মানুষের উপর চালানো হতো নির্মম অত্যাচার ও নির্যাতন। যশোর রোড দিয়ে যাওয়া শরণার্থীদের ধরে এনে ক্যাম্পে রেখে সর্বস্ব কেড়ে নিয়ে তাদের উপর নির্যাতন চালানো হতো। ঝিকরগাছার মানুষের কাছে এই রাজাকার ক্যাম্পটি ছিল একটি আতঙ্কের জায়গা।

 

*** 

Jhikargachha Razakar camp was situated at doctor Subas Babu's house near Sagol Patti in Jhikargachha Bazar. Dr. Subas lived on the 1st floor with his family and his chamber and medical store was in the ground floor. He left with his family in India ‍after the war broke out. Local Razakars took the abandoned house of Subas Babu and camped there. The Razakars carried out brutal torture on the supporter of liberation war. Refugees passing through the Jessore Road were brought in the camps, looted and tortured.

নিকটবর্তী আরও স্থান
  • post-image
    ঝিকরগাছা রাজাকার ক্যাম্প/ Jhikargachha Razakar camp
    <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; mso-bidi-font-size: 12.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;">ঝিকরগাছা বাজারের ভিতরে ছাগল পট্টির কাছে ডাক্তার সুবাস বাবুর বাড়িতে ঝিকরগাছা রাজাকার ক্যাম্প ছিল। সুবাস বাবুর দোতলা বাড়ির নিচতলায় ছিল তাঁর ডাক্তারখানা ও ঔষধের দোকান। আর দোতলায় তিনি সপরিবারে<span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp; </span>বাস করতেন। মুক্তিযুদ্ধে শুরুর পর অত্যাচারের ভয়ে বাড়ি ছেড়ে তিনি সপরিবারে ভারতে চলে যান। স্থানীয় রাজাকাররা সুবাস বাবুর পরিত্যক্ত বাড়ি দখল করে সেখানেই তাদের ক্যাম্প করে। রাজাকারদের ঐ ক্যাম্পে প্রতিদিন মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের মানুষের উপর চালানো হতো নির্মম অত্যাচার ও নির্যাতন। যশোর রোড দিয়ে যাওয়া শরণার্থীদের ধরে এনে ক্যাম্পে রেখে সর্বস্ব কেড়ে নিয়ে তাদের উপর নির্যাতন চালানো হতো। ঝিকরগাছার মানুষের কাছে এই রাজাকার ক্যাম্পটি ছিল একটি আতঙ্কের জায়গা।</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; mso-bidi-font-size: 12.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;">***&nbsp;</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; mso-bidi-font-size: 12.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;">Jhikargachha Razakar camp was situated at doctor Subas Babu's house near Sagol Patti in Jhikargachha Bazar. Dr. Subas lived on the 1st floor with his family and his chamber and medical store was in the ground floor. He left with his family in India &zwj;after the war broke out. Local Razakars took the abandoned house of Subas Babu and camped there. The Razakars carried out brutal torture on the supporter of liberation war. Refugees passing through the Jessore Road were brought in the camps, looted and tortured. </span></p>
  • post-image
    ঝিকরগাছা শান্তি কমিটির অফিস/Jikargachha Peace Committee Office
    <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; mso-bidi-font-size: 12.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;">ঝিকরগাছা বাজার থেকে বেনাপোলের দিকে যেতে কপোতাক্ষ নদের উপর ব্রিজের ঠিক আগে বাম পাশে আনজুমানে মোহাজেরিন এর অফিস ছিল। ভারতে বাস্তুহারা মোহাজেরদের কল্যাণে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল এই সংস্থাটি। মুক্তিযুদ্ধের সময় ঝিকরগাছার এই সংস্থাটি সরাসরি মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতা করে। এই সংস্থার অফিসেই ঝিকরগাছা থানা শান্তি কমিটির অফিস ছিল। এই অফিসে এলাকার বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষকে ডেকে অথবা ধরে এনে নানারকম প্রশ্ন করা হতো তারা মুক্তিযোদ্ধা কিনা, অথবা মুক্তিযোদ্ধাদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দিচ্ছে কিনা। কাউকে কাউকে সরাসরি দু একটা প্রশ্ন করে নির্যাতন করা হতো।</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; mso-bidi-font-size: 12.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;">***&nbsp;</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; mso-bidi-font-size: 12.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;">Anjumane Mohajerin's office was situated near Benapole before the bridge of river Kapotaksha. This organization was founded for the welfare of the Mohajirs. During the Liberation, this organization of Jhikargachha directly opposed the liberation war. Its office was used by the Jikargachha Peace Committee as their own office. In this office, people from different classes and occupations were interrogated about the freedom fighters. Some were interrogated and tortured too. </span></p>
  • post-image
    ওয়াপদা বধ্যভূমি/ WAPDA Mass Killing Site
    <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">ঝিকরগাছা উপজেলা ওয়াপদা বধ্যভূমিতে একাত্তরে শতশত মানুষকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে পাকিস্তানি সেনাবাহিনী, রাজাকার ও বিহারিরা। ঝিকরগাছা এলাকার প্রবীণ ব্যক্তিরা জানান ওয়াপদার ভিতরে একাত্তরে কত মানুষকে যে হত্যা করা হয়েছে তার কোন </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">ইয়াত্তা </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">নেই। মোল্লু বিহারী নামে একজন জল্লাদ এখানে বেশিরভাগ মানুষকে জবাই করে হত্যা করেছে। মার্চ থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত এখানে শতশত মানুষকে হত্যা করেছে তারা। অধিকাংশ মানুষের নাম পরিচয় জানা যায় না। বিশেষ করে শরণার্থীরা বহিরাগত হওয়ায় তাদের নাম জানা সম্ভব না। </span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">&nbsp;</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">Hundreds of people were brutally killed in the WAPDA mass killing site at Jhikargachha Upazila. The elderly people of this area stated that </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;">numerous people were perpetrated here. </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">Mollu Bihari, a executioner, had killed most of the people. From March to December, they had killed hundreds of people. The identities remain unknown as most of them were refugees. </span></p>
  • post-image
    লাউজানি পাকিস্তানি সেনাদের ক্যাম্প/ Laujani Army Camp
    <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">যশোর-বেনাপোল রোডের লাউজানিতে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী একটি শক্তিশালী ক্যাম্প স্থাপন করে। ক্যাম্পের পাশে তারা চেকপোস্ট বসায়। ঐ রোডে যাতায়াত করা সমস্ত লোককে তারা তল্লাশী করতো। তল্লাশীর সময় কারো প্রতি সন্দেহ হলে তাদেরকে ধরে নিয়ে ক্যাম্পে রেখে অকথ্য নির্যাতন চালানো হতো। এই চেকপোস্টে প্রতিদিন অনেক মানুষকে বিশেষ করে পুরুষদের ধরে নিয়ে নির্মম নির্যাতন করতো পাকিস্তানি সেনারা।</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">***&nbsp;</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">The Pakistani army set up a potent camp at Laujani on Jessore-Benapole Road.<span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp; </span>They had set check post next to the camp. They searched all the people passing on that road. If anyone was suspected, they were taken and tortured in the camp. Every day many people, especially men, were brutally tortured by Pakistani soldiers at this check post.</span></p>
  • post-image
    ধোপাখোলা গ্রাম গণহত্যা/ Dhopakhola Genocide
    <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">যশোর শহর থেকে ৭-৮ কিলোমিটার পশ্চিম-দক্ষিণ দিকে আরবপুর ইউনিয়নের একটি গ্রাম ধোপাখোলা। সকাল দশটা-সাড়ে দশটার দিকে গ্রামটির দুদিক থেকে ঘিরে ফেলে পাকিস্তানি সেনারা। একদল আসে যশোর-বেনাপোল রেলপথ ধরে</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">অন্য দলটি আসে যশোর-বেনাপোল সড়ক পথ ধরে। উভয় দিক দিয়ে এসে পাকিস্তানি সেনারা গ্রামের নারী</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">পুরুষ</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">শিশু</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">বৃদ্ধ সকলের ওপর নির্মমভাবে ঝাঁপিয়ে পড়ে। মানুষ পালাবার কোনো সুযোগ পায় না। প্রথমে তাদের ধরে এনে নির্মমভাবে বীভৎস নির্যাতন চালায়। দীর্ঘক্ষণ অত্যাচার নির্যাতনে মৃত প্রায় মানুষগুলোকে টেনে হিঁচড়ে গ্রামের মধ্যে একস্থানে লাইনে দাঁড় করিয়ে গুলি করে হত্যা করে। শতাধিক মানুষকে সেদিন পাকিস্তানি সেনারা হত্যা করে।</span></p> <p class="MsoNormal">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">*** </span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">Dhopakhola, a village in Arabpur union, is </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">3-5</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;"> km west-south of Jessore city. The Pakistani army surrounded the village at around </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">10:30</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;"> am. The Pakistani army ruthlessly attacked on women, men, children and the elderly in the village. People had little chance to escape. They were brutally tortured and killed. On that day at least hundreds of people were killed. </span></p>
  • post-image
    ধোপাখোলা গণকবর/ Dhopakhola Mass Grave
    <p class="MsoNormal" style="margin-bottom: 10.0pt; mso-line-height-alt: 12.65pt; background: white;"><span style="font-size: 14.0pt; font-family: Kalpurush; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: #222222; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">পাকিস্তানি হানাদারবাহিনী সদর উপজেলার ধোপাখোলা গ্রামে যাদের হত্যা করে তাদেরকে ধোপাখোলা গ্রামে গণকবর দেয়া হয়।</span></p> <p class="MsoNormal" style="margin-bottom: 10.0pt; mso-line-height-alt: 12.65pt; background: white;"><span style="font-size: 14.0pt; font-family: Kalpurush; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: #222222; mso-bidi-language: BN;">***&nbsp;</span></p> <p class="MsoNormal" style="margin-bottom: 10.0pt; mso-line-height-alt: 12.65pt; background: white;"><span style="font-size: 14.0pt; font-family: Kalpurush; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: #222222; mso-bidi-language: BN;">People, who were killed in the Dhopakhola village of Sadar Upazila, were buried in the Dhopakhola village. </span></p>
  • post-image
    লাউজানি বধ্যভূমি/ Laujani Mass Killing Field
    <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">যশোর-বেনাপোল রোডে লাউজানিতে একাত্তরে পাকিস্তানি সেনারা একটি শক্তিশালী ঘাঁটি স্থাপন করে। এ রোড দিয়ে যে কোনো যানবাহন গেলে পাকিস্তানি সেনারা যাত্রীদের নামিয়ে তল্লাশী করতো। যাত্রীদের তল্লাশীর সময় কারো প্রতি সন্দেহ হলে তাদেরকে সেনাঘাঁটিতে নিয়ে নানারকম প্রশ্ন করা হতো এবং নির্যাতন চালানো হতো। নির্যাতনের পর তাদেরকে হত্যা করা হতো।</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">*** </span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">The Pakistani army set up a strong base in Laujani on Jessore-Benapole Road. Any vehicle passing through this road was searched by the Pakistani army. During the investigation, if the suspect anyone, they used to interrogate him in the camp and tortured. Sometimes, they used to kill the suspected people. </span></p>
  • post-image
    ময়নাপাড়া একক গণহত্যা/ Moynapara Genocide
    <p class="MsoNoSpacing" style="text-align: justify;"><span style="font-family: Kalpurush; font-size: 14pt;">কালিয়া উপজেলা ও নড়াগাতি থানার খাশিয়াল ইউনিয়নে ময়নাপাড়া গ্রামের অবস্থান। ১৯৭১ সাল জুন মাসের দিকে জয়নগর থেকে এক দল খান সেনা ময়নাপাড়া দিয়ে যাওয়ার পথে ময়নাপাড়া খেয়া ঘাটের পাশে দুই জন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিকে গুলি করে হত্যা করে। তাদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।</span></p> <p class="MsoNoSpacing" style="text-align: justify;">&nbsp;</p> <p class="MsoNoSpacing" style="text-align: justify;"><span style="font-family: Kalpurush; font-size: 14pt;">***</span></p> <p class="MsoNoSpacing" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14pt; font-family: Kalpurush;">Moynapara village is located in Khasial Union. On June, </span><span style="font-size: 14pt; font-family: Kalpurush;" lang="BN">1971</span><span style="font-size: 14pt; font-family: Kalpurush;">, Pakistani Military killed two unidentified persons near the Moynapara Kheya Ghat. The names remain unknown.</span></p> <p class="MsoNoSpacing" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; font-family: Kalpurush;">&nbsp;</span></p>
  • post-image
    লক্ষ্মীপুর গ্রাম গণহত্যা/ Laksmipur Village Genocide
    <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">১৯৭১ সালের বৈশাখ মাসের ৫ তারিখে ঝিকরগাছা উপজেলার লক্ষীপুর গ্রামে পাকিস্তানি সেনারা নির্মম গণহত্যা চালায়। </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">গ্রামের লোকেরা তখন </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">বাড়িতেই ছিল। পাকিস্তানি হায়েনার দল তাদের ওপর ঝাপিয়ে পড়লো। ঐ গ্রামের যুবক বিলাত আলী বাড়িতেই ছিলেন। পাকিস্তানি সেনারা তার বাড়িতে ঢুকলে তিনি তাদের সালাম দেন। সঙ্গে সঙ্গে রাইফেল তাক করে পাকিস্তানি সেনারা তার চুলের মুঠো ধরে বেদম প্রহার করতে থাকে বুটের লাথি, বেওনেটের খোঁচায় রক্তাক্ত করে। এরপর এগিয়ে এলেন তাদের এক নিকট আত্মীয় গোলাম দফাদার। তাকে ধরে ফেলে পাকিস্তানি এবং তার ভাগ্যেও নেমে আসে বিলাত আলীর অবস্থা। এরপর গ্রামের বিভিন্ন বাড়িতে হানা দিয়ে তারা আরো অনেককে ধরে ফেলে। পাকিস্তানি সেনারা লক্ষীপুর, চারাতলা প্রভৃতি গ্রামের অনেক মানুষকে ধরে লাইনে দাঁড় করিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে। সেদিনের গণহত্যার শিকার সকলের নাম জানা যায় নি। <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;&nbsp;</span></span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;"><span style="mso-spacerun: yes;">***&nbsp;</span></span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">&nbsp;</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush;">On 18<sup>th</sup> April 1971, the Pakistani army carried out a brutal genocide in the village of Lakshmi in Jhikargacha Upazila. thePakistani army attacked the local people. They had tortured and injured severely Bilat Ali, a young man from that village and one of his close relatives, Ghulam Dufadar. Then they also attacked many houses in the village and captured many more. Pakistani Army killed the villagers of Lakshmipur and Charatala. The names of all the victims of that day are not known. </span></p>
  • post-image
    বেনোয়ালি ক্যাম্প/ Benowali Camp
    <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; mso-bidi-font-size: 12.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;">বেনোয়ালি গ্রামে যশোর-বেনাপোল রোডের পাশে পাকিস্তানি সেনারা ক্যাম্প স্থাপন করে </span><span style="font-size: 12.0pt; mso-ansi-font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">এবং</span><span style="font-size: 14.0pt; mso-bidi-font-size: 12.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;">সেখানে একটি চেকপোস্ট বসায়। রাস্তা দিয়ে বিভিন্ন যানবাহন গেলে সেখানে যাত্রীদের নামিয়ে তল্লাশী করা হতো। তবে পাকিস্তানি সেনাদের এই ক্যাম্পটিতে পাহারা দিতো রাজাকাররা। মাঝে মাঝে পাঞ্জাবি সেনারা সেখানে আসতো। ঐ ক্যাম্পে রাজাকাররা তাদের ইচ্ছেমত লোকজন ধরে এনে নির্যাতন করতো। শিমুলিয়া খ্রিস্টান মিশনের ফাদার কভ ও একজন মেম গাড়িতে করে যশোর থেকে শিমুলিয়া মিশনে যাচ্ছিলেন। রাজাকাররা বেনোয়ালিতে ঐ গাড়ি দাঁড় করিয়ে মেমকে নামিয়ে নেয়। তারা মেমকে তাদের ক্যাম্পে আটকে রাখে। ফাদার তখন দ্রত যশোরে গিয়ে সেনা কর্মকর্তাদের কাছে অভিযোগ করেন। ঐ কর্মকর্তা নিজেই তখন বেনোয়ালিতে গিয়ে রাজাকারদের মারধোর করেন এবং মেমকে ফাদারের কাছে হস্তান্তর করেন। রাজাকাররা মেমকে ধর্ষণ না করলেও তাকে নানাভাবে লাঞ্চিত করে।</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-family: Kalpurush; font-size: 14pt;">***</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; mso-bidi-font-size: 12.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;">Pakistani army set up a camp and a check post beside Jessore-Benapole Road in Benowali village. Later they set a checkpoint there. They used to search the passengers of the vehicles crossed the road. Razakars guarded this camp of the Pakistani army and tortured people here. Punjabi army used to come here occasionally. Father Cove of Shimulia Christian Mission and a lady were travelling from Jessore to Shimulia Mission by car. The Razakars stopped the car at Benowali and took the lady and imprisoned her in the camp.<span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp; </span>Then, Father went to Jessore and complained it to the army officers. The officer himself went to Benowali, beat the Razakars and handed over the lady to the Father. Even though the Razakars did not rape the lady, but abused her in various ways. </span></p>