খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় শহীদ স্মৃতিফলক/ Khulna University Martyr memorial

পাকিস্তান আমলে খুলনা রেডিও স্টেশনটি ছিল গল্লামারীতে। বর্তমানে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় যেখানে, সেখানেই ছিল রেডিও সেন্টার। এর মূল ভবনটি একাত্তরে পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর অন্যতম প্রধান নির্যাতন কেন্দ্র ছিল। যুদ্ধের পুরো সময়ে  পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী বিভিন্ন সময়ে অসংখ্য মানুষকে ধরে এনে মূল ভবনের ভেতরে এবং বাইরে গাছে ঝুলিয়ে নির্মমভাবে নির্যাতন করে তারপর রাতের অন্ধকারে গল্লামারী বধ্যভূমিতে নিয়ে হত্যা করতো।

 

বর্তমানে এখানে স্মৃতিফলক স্থাপন করা হয়েছে।

 

*** 

 

The Khulna radio station was in the Gallamari, although the radio station has been replaced by Khulna University now. The main building of the radio station was a torture cell of Pakistani military force. Pakistani military, with the help to their local associates, used to capture and bring people from different places, and then killed them brutally in the camp.

নিকটবর্তী আরও স্থান
  • post-image
    খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় শহীদ স্মৃতিফলক/ Khulna University Martyr memorial
    <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">পাকিস্তান আমলে খুলনা রেডিও স্টেশনটি ছিল গল্লামারীতে। বর্তমানে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় যেখানে</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black;">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">সেখানেই ছিল রেডিও সেন্টার। এর মূল ভবনটি একাত্তরে পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর অন্যতম প্রধান নির্যাতন কেন্দ্র ছিল। যুদ্ধের পুরো সময়ে<span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp; </span>পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী বিভিন্ন সময়ে অসংখ্য মানুষকে ধরে এনে মূল ভবনের ভেতরে এবং বাইরে গাছে ঝুলিয়ে নির্মমভাবে নির্যাতন করে তারপর রাতের অন্ধকারে গল্লামারী বধ্যভূমিতে নিয়ে হত্যা করতো।</span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black;">&nbsp;</span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">বর্তমানে এখানে স্মৃতিফলক স্থাপন করা হয়েছে।</span></p> <p class="MsoNormal">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">***&nbsp;</span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: BN;">&nbsp;</span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: BN;">The Khulna radio station was in the Gallamari, although the radio station has been replaced by Khulna University now. The main building of the radio station was a torture cell of Pakistani military force. Pakistani military, with the help to their local associates, used to capture and bring people from different places, and then killed them brutally in the camp. </span></p>
  • post-image
    খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় বধ্যভুমি/ Khulna University Mass-killing site
    <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">পাকিস্তান আমলে খুলনা রেডিও স্টেশনটি ছিল গল্লামারীতে। বর্তমানে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় যেখানে</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">সেখানেই ছিল রেডিও সেন্টার। এর মূল ভবনটি একাত্তরে পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর অন্যতম প্রধান নির্যাতন কেন্দ্র ছিল। যুদ্ধের পুরো সময়ে<span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp; </span>পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী বিভিন্ন সময়ে অসংখ্য মানুষকে ধরে এনে মূল ভবনের ভেতরে এবং বাইরে গাছে ঝুলিয়ে নির্মমভাবে নির্যাতন করে তারপর অনেককে এখানে হত্যা করতো।</span></p> <p class="MsoNormal">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">***</span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN"></span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;">The Khulna radio station was in the Gallamari, although the radio station has been replaced by Khulna University now. The main building of the radio station was a torture cell of Pakistani military force. Pakistani military, with the help to their local associates, used to capture and bring people from different places, and then used to them brutally in the camp.</span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN"></span></p>
  • post-image
    গল্লামারি গণহত্যা/ Gallamari Genocide
    <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধকালে গল্লামারী ছিলো এক আতঙ্কের নাম। খুলনা শহরের অদূরবর্তী এই জায়গাটি ১৯৭১ এ ছিলো বেশ নির্জন।<span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp; </span>গল্লামারী নদীর উপরে বর্তমানে পাকা সেতুটি তখন ছিলো কাঠের পোল। ছিলো না খুলনা-সাতক্ষীরা রোড। বর্তমান খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের দোতলা প্রশাসনিক ভবনটি ছিল তখন একতলা বেতারকেন্দ্র। এই ভবন থেকে বেতার কার্যক্রম সম্প্রচার করা হতো। এই ভবন ৭১ এ ছিল নির্যাতন ও গণহত্যার কেন্দ্র। একদিকে নির্জনতা অন্যদিকে পাশ দিয়ে নদী বয়ে যাওয়ার ফলে গড়ে তোলা হয় বধ্যভূমি। নিরীহ বাঙালিদের ধরে এনে এই ভবনে আটকে রাখা হতো</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">নির্যাতন করা হতো। নির্যাতনের জন্য ভবনের পিছনের একটি দোচালা ঘর ও সামনের চত্বর ব্যবহার করা হত। মৃত্যু নিশ্চিত হলে লাশগুলো ফেলে দেওয়া হতো সামনে বয়ে যাওয়া নদীতে এবং সামনে নির্জন জায়গাটিতে। </span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">১৯৭১ সালে খুলনা বেতার কেন্দ্রের এনাউন্সার হামিদুর রহমান বলেন</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">তখন বেতার কেন্দ্রে চাকরি করতে হতো মিলিটারি বেস্টনির ভিতর দিয়ে। দুর-দুরান্ত থেকে লোকজন এনে বেতার কেন্দ্রে পুলিশ ব্যারাকে রাখা হতো। তারপর সন্ধ্যা হলে সেই নিরীহ লোকগুলোকে দাঁড় করিয়ে ব্রাশফায়ার করা হতো। কিছুদিন পরে ফায়ার করার পরিবর্তে জবাই করতো জল্লাদেরা। সেই সময়ে বাঙালি কিছু রাজাকার পাকবাহিনীর কাছ থেকে বাঙালি হত্যা করার দায়িত্ব নেয়।</span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">সারাদিন ধরে শহর ও গ্রাম থেকে বাঙালিদের ধরে এনে হেলিপোর্ট ও ইউ.এফ.ডি ক্লাবে জমায়েত করতো। তারপর মধ্যরাতে হতভাগ্য নিরীহ বাঙালিদের পেছনে হাত বেঁধে বেতার কেন্দ্রের সামনে দাঁড় করিয়ে স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র দ্বারা তারা ব্রাশ ফায়ার করতো। হত্যার আগে তাদের ট্রাকে ভরে যখন নিয়ে আসা হতো তখন তাদের আর্তনাদ রাস্তার আশেপাশের মানুষ শুনতো। কিন্তু কারফিউয়ের কারণে তাদের বাইরে যাওয়ার উপায় ছিল না। তাদের আপনজনের লাশ শনাক্ত করলেও সেখান থেকে উঠিয়ে নিতে পারতেন না। কেননা বর্বরেরা জানতে পারলে তাকেও হত্যা করবে। কিছুদিন জল্লাদেরা ঠিক করল গুলি করে আর হত্যা নয়। এবার শুরু হল জবাই করে হত্যা। কিন্তু সংখ্যা কমলো না</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">সেই শতাধিক প্রতি রাতে।<span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp; </span>কিছুদিন পরে রাতের সঙ্গে দিনের বেলাতেও হত্যা শুরু করল। সকলের চোখের সামনে দিয়ে পিঠমোড়া দিয়ে ট্রাকভর্তি বাঙালিদের গল্লামারী নিয়ে যাওয়া হতো</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">ঘণ্টাখানেক পরে খালি ট্রাক ফিরে আসতো</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">গল্লামারীতে পড়ে থাকতো তাদের নিথর দেহগুলো। অনেকেরই নির্যাতনে মৃত্যু হতো</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">কাউকে কাউকে গুলি করে অথবা বেয়নেট দিয়ে অথবা জবাই করে হত্যা করা হতো। খুলনা শহর মুক্ত হওয়ার পরে গল্লামারী খাল থেকে দুই ট্রাক মাথার খুলি পাওয়া গিয়েছিলো। </span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">দেশ স্বাধীনের পরে অনেকেই ঐ ঘরটিতে নির্যাতিতদের রক্তমাখা জামা-কাপড় ও ব্যবহার্য টুকিটাকি জিনিসপত্র যেমন দেখেছেন</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">; </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">তেমনি দেয়ালে রক্ত দিয়ে নানা আকুতির কথা লেখা দেখেছেন। পাকিস্তানি সেনাদের হাতে নির্যাতিত এমনি একজনের আকুতিভরা কথা</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, &lsquo;</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">মা</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">তোমার সাথে আমার আর দেখা হবে না</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">&rsquo;</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">।</span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';"><span style="mso-tab-count: 1;">&nbsp;&nbsp;&nbsp;&nbsp;&nbsp;&nbsp;&nbsp; </span></span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">এ প্রসঙ্গে ১৯৭১ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি দৈনিক বাংলায় লেখা হয়-</span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">&ldquo;</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">গল্লামারী খুলনা শহরের কেন্দ্রস্থল থেকে মাত্র দেড় মাইল। সেখানে শুধু ধানের ক্ষেত। মার্চের আগে গল্লামারী নামটা শুনলে চোখের সামনে ভেসে উঠতো ধানের শীষে শীষে ভরে ওঠা দিগন্ত বিস্তীর্ণ ভূমি। কিন্তু মার্চের পরে</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">? </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">তখন গল্লামারী নাম শুনলে খুলনার যে কোন লোকের মন আতঙ্কে ভরে উঠতো। হাজার হাজার বাঙালির রক্তে রঞ্জিত হয়েছে গল্লামারী। আমার মনে হয় বাংলাদেশে গল্লামারীর মতো কোনো দ্বিতীয় স্থান নেই- যেখানে জল্লাদেরা এত অধিক সংখ্যক বাঙালিকে হত্যা করেছে</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">&rdquo;</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">।</span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';"><span style="mso-tab-count: 1;">&nbsp;&nbsp;&nbsp;&nbsp;&nbsp;&nbsp;&nbsp; </span></span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সাত্তার এক সাক্ষাৎকারে বলেন</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">,</span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';"><span style="mso-tab-count: 1;">&nbsp;&nbsp;&nbsp;&nbsp;&nbsp;&nbsp;&nbsp; </span></span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">১৬ ও ১৭ ডিসেম্বর এখানে এসে লাশের পচা দুর্গন্ধ</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">কঙ্কাল</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">হাড়-গোড় এবং মাথার খুলিতে পা রাখা দায়। যা আজ কল্পনাকেও হার মানায়। যেখানে আজকের বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধ</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">সেখানে ছিলো ধানক্ষেত। গল্লামারী নদী তীরবর্তী এলাকা</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">আশেপাশের ধানক্ষেত</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">সামান্য দূরের বেতার সম্প্রচার ভবন প্রভৃতি গোটা এলাকায় ছিলো হাজার হাজার মানুষের নিথর দেহ। অনেকে ছুটে গেছেন সেদিন স্বজনকে খুঁজতে। দুর্গন্ধে বাতাস ভারী হয়ে ওঠা এলাকায় নাক-মুখ চেপে সেই অবশেষ লাশ</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">হাড়-গোড় ও কঙ্কালের মধ্যে প্রিয়জনের স্মৃতিচিহ্ন খুঁজে ফিরেছে। কেউ পেয়েছে</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">কেউ পায়নি। </span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';"><span style="mso-tab-count: 1;">&nbsp;&nbsp;&nbsp;&nbsp;&nbsp;&nbsp;&nbsp; </span></span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">গল্লামারী বধ্যভূমিতে কতজনকে হত্যা করা হয়েছিলো</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">তা যেমন নিরুপণ করা সম্ভব হয়নি</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">; </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">তেমনি এখানে কাদের হত্যা করা হয়েছিলো</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">তার বেশিরভাগই শনাক্ত করা সম্ভব হয় নি। </span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">কেননা যুদ্ধকালে কেউ সেখানে যেতে সাহস করতেন না। যুদ্ধশেষে যারা গেছেন</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">তারা দেখেছেন নরকঙ্কালের স্তূপ। বিভিন্ন প্রতক্ষদর্শীর মতে এখানে শহিদের সংখ্যা দশ হাজারের কাছাকাছি। এদের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধা শান্তিলতা সাহা</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">দাকোপ থানার গড়খালী গ্রামের মাহাতাব বিশ্বাস অন্যতম। এই নারকীয় ঘটনায় অংশ নেয় স্থানীয় রাজাকার নওশের শেখ</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">জহুর শেখ</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">সোহরাব মোল্লা</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">হামিজুদ্দিন শেখ</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">সফি গাজী</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">আসমতো গাজী</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">আলাহি সানা ও মনি সানা।</span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস লেখক সুকুমার বিশ্বাস দেশ স্বাধীনের পর পরই গল্লামারীতে একাধিকবার গিয়েছেন। তিনি লিখেছেন</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">১৯৭২ সালে এই গল্লামারী বধ্যভূমিতে আমি একাধিকবার গেছি। গিয়েছিলাম খুলনা বেতার কেন্দ্রেও। স্টুডিওগুলো ছিল ধ্বংসপ্রায়। একটি স্টুডিও কক্ষে বাদ্যযন্ত্রগুলো ভেঙ্গে চুরমার হয়ে পড়েছিল। কেবল বেতার কেন্দ্র নয় খুলনার প্রায় সব এলাকা ঘুরেছিলাম। আমি ও আমার তিন সহকর্মী গিয়েছিলাম </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">&ldquo;</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">জাতীয় স্বাধীনতার ইতিহাস পরিষদ</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">&rdquo;-</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">এর পক্ষ থেকে স্বাধীনতা যুদ্ধের তথ্য সংগ্রহ করতে। </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">&lsquo;&lsquo;</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">সেদিন গল্লামারীর বিস্তীর্ণ এলাকায় যে বীভৎস রূপ আমি দেখেছিলাম- তা আজ আর আমার পক্ষে বর্ণনা করা সম্ভব নয়</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">মানব ইতিহাসে এই করুণতম দৃশ্য যেন আর কোনো মানব সন্তানকে দেখতে না হয়</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">&rdquo;</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">।</span></p> <p class="MsoNormal">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">***</span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN"></span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-family: Kalpurush; color: black; background: white;">Gallamari was a name of terror during the time of liberation war, 1971. There was a one-storied building of radio-station at that time, which has been replaced by two-storied administrative building of Khulna University at present. In 1971, the building was a center of genocide and torture. Innocent Bengalis were abducted from different places and kept in this building. They were then tortured brutally until they are dead. Their dead-bodies were thrown out in the river afterwards. </span><span style="font-family: Kalpurush; color: black; background: white; mso-bidi-language: BN;">Early on, Bengali people were killed by firing, and laterthey were slain by cutting one&rsquo;s throat.According to many eyewitnesses, the number of people killed in this place during the time of 1971 is around ten thousand. They also said that, the situation of this place that they had observed in 16-17 December was beyond imagination. <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span>The place was full of corpse,skulls, skeletons, bones.Someone wrote on the wall of the torture center that, &lsquo;Mother, we might not meet again&rsquo;! He wrote this sentence on the wall by his own blood. </span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN"></span></p>
  • post-image
    গল্লামারি বধ্যভূমি, ১ নং জলমা ইউনিয়ন/ Gallamari Mass Killing Site, 1 No. Zolma Union
    <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে বৃহৎ বধ্যভূমির মধ্যে গল্লামারী অন্যতম। মুক্তিযুদ্ধের সময় এই এলাকা ছিল নির্জন। লোকজনের চলাফেরা ছিল কম। গল্লামারী নদীর পাশে ছিল ধানক্ষেত। যুদ্ধ শুরুর পর থেকে দীর্ঘ নয় মাস খুলনা শহর ও এর আশপাশের বিভিন্ন এলাকা থেকে মুক্তিযোদ্ধা</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: BN;">, <span lang="BN">মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের মানুষসহ বিপুল সংখ্যক মানুষকে এখানে এনে হত্যা করে মৃতদেহ নদীতে ভাসিয়ে দেয়া হতো। খুলনা সার্কিট হাউস</span>, <span lang="BN">রেডিও স্টেশন</span>, <span lang="BN">লায়ন্স স্কুল</span>, <span lang="BN">ইউ এফ ডি ক্লাব<span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp; </span>প্রভৃতি নির্যাতন কেন্দ্রে নির্যাতনের পর প্রায় প্রতিদিন রাতে ট্রাকে করে তাদের এখানে এনে হত্যা করা হতো। প্রথম দিকে গুলি করে হত্যা করতো</span>, <span lang="BN">পরে বিহারীরা জবাই করে হত্যা করতো। এই বধ্যভূমিতে<span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp; </span>কমপক্ষে দশ হাজার মানুষকে হত্যা করা হয়েছে। খুলনা শহর মুক্ত হওয়ার পর এই বধ্যভূমি থেকে দুই ট্রাক মাথার খুলি পাওয়া গিয়েছিল। শহীদদের স্মরণে এখানে স্মৃতিস্তম্ভ স্থাপিত হয়েছে।</span></span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: BN;"><span lang="BN">***&nbsp;</span></span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: BN;">Gallamari was a name of terror during the time of liberation war, 1971. There was a one-storied building of radio-station at that time, which has been replaced currently by two-storied administrative building of Khulna University. In 1971, the building was a center of genocide and torture. Innocent Bengalis were abducted from different places and kept in this building. They were then tortured brutally until they are dead. Their dead-bodies were thrown out in the river afterwards. Early on, Bengali people were killed by firing, and later they were slaughtered by cutting one&rsquo;s throat. According to many eyewitnesses, the number of people killed in this place during the time of 1971 is around ten thousand. They also said that, the situation of this place that they had observed in 16-17 December was beyond imagination.<span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp; </span>The place was full of corpse, skulls, skeletons, bones. Someone wrote on the wall of the torture center that, &lsquo;Mother, we might not meet again&rsquo;! He wrote this sentence on the wall by his own blood.</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: BN;">&nbsp;</span></p>
  • post-image
    লায়ন্স স্কুল নিযার্তন কেন্দ্র, ১ নং জলমা ইউনিয়ন/ Lions school torture center, 1 No. Zolma Union
    <p class="MsoNormal" style="mso-margin-top-alt: auto; mso-margin-bottom-alt: auto; line-height: normal;"><span style="font-size: 14.0pt; font-family: Kalpurush; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">খুলনা লায়ন্স স্কুল গল্লামারীতে অবস্থিত। শহরের কাছাকাছি হলেও একাত্তরে এদিকে খুব বেশি মানুষ চলাচল করতো না</span><span style="font-size: 14.0pt; font-family: Kalpurush; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: HI;" lang="HI">।</span><span style="font-size: 14.0pt; font-family: Kalpurush; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">এই সময়ে গল্লামারী খুলনার মানুষের কাছে ছিল এক আতঙ্কের জায়গা</span><span style="font-size: 14.0pt; font-family: Kalpurush; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: HI;" lang="HI">।</span><span style="font-family: Kalpurush; color: black;" lang="HI">&nbsp;</span><span style="font-size: 14pt; font-family: Kalpurush;" lang="BN">মুক্তিযুদ্ধে</span><span style="font-size: 14pt; font-family: Kalpurush;">`<span lang="BN">র সমগ্র সময় ধরে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী শত শত নারী পুরুষকে ধরে এনে এই নির্যাতন কেন্দ্রে রেখে নির্যাতন করে গল্লামারী বধ্যভূমিতে নিয়ে হত্যা করতো</span></span><span style="font-size: 14pt; font-family: Kalpurush;" lang="HI">।</span></p> <p class="MsoNormal" style="mso-margin-top-alt: auto; mso-margin-bottom-alt: auto; line-height: normal;"><span style="font-size: 14.0pt; font-family: Kalpurush; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: HI;">&nbsp;</span></p> <p class="MsoNormal" style="mso-margin-top-alt: auto; mso-margin-bottom-alt: auto; line-height: normal;"><span style="font-size: 14.0pt; font-family: Kalpurush; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: HI;">***</span></p> <p class="MsoNormal" style="mso-margin-top-alt: auto; mso-margin-bottom-alt: auto; line-height: normal;"><span style="font-size: 14.0pt; font-family: Kalpurush; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: HI;">Khulna Lions school is situated in Gollamari. During liberation war, Pakistani military force</span><span style="font-size: 14.0pt; font-family: Kalpurush; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: BN;">used this school as their torture center. They used to torture people in the torture center and then exterminate them in the mass-killing site. </span></p>
  • post-image
    হ্যানে রেলওয়ে বয়েজ স্কুল গণহত্যা/ Hane Railway Boy's School genocide
    <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">৭১ এ রেল কলোনিতে বসবাস করতেন রেল বিভেগের চাকরীজীবী মইনুল হক। তাঁর আট ছেলেমেয়ের মধ্যে তৃতীয় সন্তান মোঃ মঞ্জুরুল ইসলাম খুলনা এম এম সিটি কলেজের ছাত্র ছিলেন। ৭১ এর নয় ডিসেম্বর তারিখে তাদের সাহেবের কবরখানা রোডের দোকানে বড় ভাইকে খাবার পৌঁছে দিতে গিয়ে তিনি আর ফেরেন নি। মুক্তিযুদ্ধের পর তাঁর পিতা হারিয়ে যাওয়া সন্তানকে অনেক খুঁজেছেন। বাবুলের বোন কলেজ শিক্ষিকা পারভিন সুলতানা বলেন</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush;">, &ldquo;</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">হ্যাঁনে রেলওয়ে স্কুলের ভেতরে অনেক লাশ পুঁতে রাখা হয়েছিলো। শুধু তাই নয়</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush;">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">রেলওয়ে স্কুলের ডাক্তারের বাসায় বাথরুমে জড়াজড়ি করা অবস্থায়&nbsp; লাশও পাওয়া যায়। আব্বা রেলওয়ে স্কুল থেকে শুরু করে রেলওয়ে গুদাম পর্যন্ত ডোম দিয়ে গলিত লাশ খুঁজেছে</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush;">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">নিজের সন্তানের লাশের খোজে&rdquo;। ২০১৬ সালে &lsquo;১৯৭১ : গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘর&rsquo; এখানে একটি ফলক স্থাপন করেছে।</span></p> <p class="MsoNormal">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">***</span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN;">&nbsp;</span></p> <p class="MsoNormal"><span style="background-image: initial; background-position: initial; background-size: initial; background-repeat: initial; background-attachment: initial; background-origin: initial; background-clip: initial; font-size: 14pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush;">There was a pool (Doba) inside Hane Railway Boy&rsquo;sschool. Currently there is a primary school.During 1971, Bengali people were abducted from different places and after killing them the bodies were thrown out in the pool. By this method, Pakistani along with their associates killed more than 100 people in this place.</span><span style="background-image: initial; background-position: initial; background-size: initial; background-repeat: initial; background-attachment: initial; background-origin: initial; background-clip: initial; font-size: 14pt; line-height: 107%; font-family: Cambria, serif;">&nbsp;</span><span style="box-sizing: border-box;">&nbsp;</span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-family: Kalpurush; font-size: 14pt;">&nbsp;</span></p> <p><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-fareast-theme-font: minor-latin; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: BN;">In 1971, employee of Railway diviosn Mainul Haque used to live in rail colony. His third child, Mohammad Manjurul Islam was a student of&nbsp; MM city college then. On 9<sup>th</sup> December 1971, he went to his shop and did not return. And, the father did not find his son&rsquo;s body after searching everywhere. According to witness, many dead bodies were kept inside the Hane Railway Boy&rsquo;s school.&nbsp;</span></p> <p>&nbsp;</p> <p><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-fareast-theme-font: minor-latin; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: BN;">In 2016, '1971: Genocide-torture Archive and&nbsp;</span><span style="font-family: Kalpurush; font-size: 14pt;">museum' has built a memorial in this place.&nbsp;</span></p> <p class="MsoNormal">&nbsp;</p>
  • post-image
    হ্যানে রেলওয়ে বয়েজ স্কুল বধ্যভূমি, খুলনা সদর [কোতয়ালী] থানা/ Hane Railway Boys School Mass killing site, Khulna Sadar [Kotwali] thana
    <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">এই স্কুলের ভেতরে একটি ডোবা ছিলো। বতর্মানে এখানে একটি প্রাইমারী স্কুল। এখানে বাঙ্গালী পথচারীদের ধরে এনে হত্যা করে লাশ ঐ ডোবায় ফেলে রাখতো। বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা যায় যে এদের সংখ্যা প্রায় শতাধিক। এখানেমেরে ফেলে রাখা হয়েছিলো দারোগা আবুল কাশেমের লাশ। </span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: BN;">***</span></p> <p class="MsoNormal">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-fareast-font-family: 'Times New Roman'; color: black; mso-bidi-language: BN;">There was a pool inside the school. During the time of liberation war, many Bengali people were killed in this place. Approximately more than hundred people were killed here. <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span></span></p>
  • post-image
    ফেরীঘাট গণহত্যা/ Ferryghat genocide
    <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">রেলওয়ে হাসপাতাল কোয়ার্টারের পিছনের দিকে বর্তমানে সোনালী ব্যাংক</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">, </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">বাজার পোস্ট অফিসসহ এর আশেপাশের স্থান সে সময় ডোবার মত ছিলো। মুক্তিযুদ্ধের পুরোটা সময় এখানে বহু নিরীহ বাঙালি গণহত্যার শিকার হয় এবং তাদের লাশ এই সমস্ত ডোবায় ফেলে দেওয়া হতো। ফেরিঘাট মসজিদ সংলগ্ন এলাকায় তখন বিহারিরা বাঙালিদের জবাই করে ফেলে রাখতো। </span></p> <p class="MsoNormal">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">প্রত্যক্ষদর্শীর ভাষ্যমতে যুদ্ধকালীন সময়ে এখানে দু</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali';">&rsquo;</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">শর অধিক লোককে হত্যা করা হয়। এখানে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সব সুউচ্চ ভবন গড়ে ওঠায় এবং এখানে কোন স্মৃতিস্তম্ভ নেই। এই জায়গাটিকে বধ্যভূমি বা গণহত্যার স্থান হিসেবে খুঁজে বের করা খুবই কঠিন।</span></p> <p class="MsoNormal">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">***</span></p> <p class="MsoNormal">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14pt; line-height: 107%; font-family: Cambria, serif; background-image: initial; background-position: initial; background-size: initial; background-repeat: initial; background-attachment: initial; background-origin: initial; background-clip: initial;">The place was like a pond in the time of liberation war 1971, although the place has been replaced by the office of Sonali Bank and Post Office currently. Pakistani Military and their collaborators killed many Bengali people in this place in 1971. &nbsp;According to some eyewitness, more than 200 hundred people were killed during the war. The Bihari had slaughtered lot of Bengalis in the area adjacent of Ferryhgat Mosque.&nbsp;</span></p> <p class="MsoNormal">&nbsp;</p>
  • post-image
    ফেরিঘাট বধ্যভূমি, খুলনা সদর [কোতয়ালী] থানা/Ferryghat Mass killing site, Khulna Sadar [Kotwali]
    <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: 'Siyam Rupali'; color: black; background: white; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের পুরোটা সময় অসংখ্য বাঙালীকে হত্যা করে ডাকবাংলা ফেরিঘাটে ফেলে রাখা হতো। মুক্তিযুদ্ধের সময় সেখানে ডোবা ছিল, যদিও বর্তমানে সেখানে সোনালী ব্যাংক এবং বাজার পোস্ট অফিস অবস্থিত।</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: 'Cambria',serif; mso-bidi-font-family: Cambria; color: black; background: white;">&nbsp;</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: 'Siyam Rupali'; color: black; background: white; mso-bidi-language: BN;" lang="BN"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Siyam Rupali'; mso-fareast-font-family: Calibri; mso-ansi-language: EN-US; mso-fareast-language: EN-US; mso-bidi-language: BN;">বর্তমানে বহুতল বিশিষ্ট ভবন নির্মিত হওয়ায় বধ্যভূমি হিসেবে জায়গাটি চিহ্নিত করা খুবই কঠিন। জায়গাটি অচিহ্নিত অবস্থায় আছে।&nbsp;</span></span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: 'Siyam Rupali'; color: black; background: white; mso-bidi-language: BN;">&nbsp;</span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: 'Siyam Rupali'; color: black; background: white; mso-bidi-language: BN;">***</span></p> <p class="MsoNormal" style="line-height: normal;"><span style="font-size: 14.0pt; font-family: 'Cambria',serif; mso-bidi-font-family: Cambria; color: black; background: white;">Pakistani Military and their collaborators killed many Bengali people in Dakbangla Ferryghat during the liberation war in 1971. <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span>There was a pond on the spot at that time which has been replaced by multi</span><span style="font-size: 14.0pt; mso-bidi-font-size: 17.5pt; font-family: 'Cambria',serif; color: black; background: white; mso-bidi-language: BN;">-</span><span style="font-size: 14.0pt; font-family: 'Cambria',serif; mso-bidi-font-family: Cambria; color: black; background: white;">storied buildings at present. </span><span style="font-size: 14.0pt; mso-bidi-font-size: 17.5pt; font-family: 'Cambria',serif; color: black; background: white; mso-bidi-language: BN;">As a result the mass-killing site remain unmarked. </span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 107%; font-family: 'Cambria',serif; mso-bidi-font-family: Cambria; color: black; background: white;">&nbsp;</span></p> <p class="MsoNormal">&nbsp;</p>
  • post-image
    রেলওয়ে হাসপাতাল কোয়ার্টারের পেছনে গণহত্যা/ Railway Hospital Quarter Genocide
    <p class="MsoNormal" style="mso-margin-top-alt: auto; mso-margin-bottom-alt: auto; text-align: justify; line-height: normal;"><span style="font-size: 14pt; font-family: Kalpurush;" lang="BN">খুলনা রেলওয়ে হাসপাতাল কোয়ার্টারের পেছনের দিকে বর্তমানে যেখানে সোনালী ব্যাংক ভবন এবং বাজার পোস্ট অফিস অবস্থিত</span><span style="font-size: 14pt; font-family: Kalpurush;">,</span><span style="font-size: 14pt; font-family: Cambria, serif;">&nbsp;</span><span style="font-size: 14pt; font-family: Kalpurush;" lang="BN">৭১ এ এই সমস্থ জায়গা ডোবা ছিলো</span><span style="font-size: 14pt; font-family: Kalpurush;" lang="HI">।</span><span style="font-size: 14pt; font-family: Kalpurush;" lang="BN">মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন এখানে বিভিন্ন সময়ে গণহত্যা সংঘটিত হয়েছে</span><span style="font-size: 14pt; font-family: Kalpurush;">,</span><span style="font-size: 14pt; font-family: Cambria, serif;">&nbsp;</span><span style="font-size: 14pt; font-family: Kalpurush;" lang="BN">কয়েকশত বাঙালিকে এখানে হত্যা করে ডোবায় ফেলে রাখা হয়। এর পাশে ফেরিঘাট মসজিদ সংলগ্ন এলাকায় তখন বিহারিরা বাঙালিদের জবাই করে ফেলে রাখতো। জায়গাটি এখন দেখে বোঝার কোন উপায় নেই যে এখানে ১৯৭১ সালে নিরীহ বাঙালিদের মেরে ফেখা হতো। নিরীহ বাঙালির রক্ত এবং কংকালের উপর দাঁড়িয়ে আছে সুরম্য অট্টালিকা। জায়গাটি একেবারেই অনালোচিত এবং অচিহ্নিত</span><span style="font-size: 14pt; font-family: Kalpurush;" lang="HI">।</span></p> <p class="MsoNormal" style="mso-margin-top-alt: auto; mso-margin-bottom-alt: auto; text-align: justify; line-height: normal;"><span style="font-size: 14pt; font-family: Kalpurush;">&nbsp;</span></p> <p class="MsoNormal" style="mso-margin-top-alt: auto; mso-margin-bottom-alt: auto; text-align: justify; line-height: normal;"><span style="font-size: 14pt; font-family: Kalpurush;">***</span></p> <p class="MsoNormal"><span style="font-size: 14pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush;">There was a pool (dhoba)</span><span style="font-size: 14pt; line-height: 107%; font-family: Kalpurush;">behind Khulna Railway Hospital Quarter back in 1971. During the War of Liberation, genocide was perpetrated several times by Pakistani Army and Biharis here. Biharis used to slaughter Bengali people in the Masque area near to the Feryghat.</span></p>