ঈশ্বরদী রেলওয়ে স্টেশন বধ্যভূমি/ Ishwardi Railway Station Mass Killing Site

ঈশ্বরদী জংশন হল উত্তর বঙ্গের সাথে দক্ষিণ বঙ্গের যোগাযোগের একমাত্র পথ। যে কারণে মুক্তিযুদ্ধের সময় সাধারণ বাঙালিরা এ পথে ট্রেনযোগে যাতায়াত করতো। ঈম্বরদীতে ছিলো বিহারিদের বসতি। বিহারিরা ট্রেনে আগত যাত্রীদের ধরে জবাই ও গুলি করে হত্যা করত। রেলের ফাঁকা জায়গায় অসংখ্য বাঙালিদের হত্যার পর বিহারী (পাকিস্থানি) ও রাজাকারেরা মাটির নিচে চাঁপা দিয়ে রাখতো।

 

***

Ishwardi Junction is the only way to connect South Bengal with North Bengal. During the War of Liberation general Bengalis used to travel by train through this way. Bihari's community used to live in Ishwardi. They used to shoot and slaughter the passengers on the train. The Biharis (Pakistani) and Razakars grounded the bodies after killing.

নিকটবর্তী আরও স্থান
  • post-image
    ঈশ্বরদী রেলওয়ে স্টেশন বধ্যভূমি/ Ishwardi Railway Station Mass Killing Site
    <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;" lang="BN-BD">ঈশ্বরদী জংশন হল উত্তর বঙ্গের সাথে দক্ষিণ বঙ্গের যোগাযোগের একমাত্র পথ। যে কারণে মুক্তিযুদ্ধের সময় সাধারণ বাঙালিরা এ পথে ট্রেনযোগে যাতায়াত করতো। ঈম্বরদীতে ছিলো বিহারিদের বসতি। বিহারিরা ট্রেনে আগত যাত্রীদের ধরে জবাই ও গুলি করে হত্যা করত। রেলের ফাঁকা জায়গায় অসংখ্য বাঙালিদের হত্যার পর বিহারী (পাকিস্থানি) ও রাজাকারেরা মাটির নিচে চাঁপা দিয়ে রাখতো।</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;" lang="BN-BD">***</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;">Ishwardi Junction is the only way to connect South Bengal with North Bengal. During the War of Liberation general Bengalis used to travel by train through this way. Bihari's community used to live in Ishwardi. They used to shoot and slaughter the passengers on the train. The Biharis (Pakistani) and Razakars grounded the bodies after killing.</span></p>
  • post-image
    ঈশ্বরদী প্রেস ক্লাব গণকবর
    <p class="MsoNormal"><span style="font-family: 'Vrinda','serif'; mso-ascii-font-family: Calibri; mso-ascii-theme-font: minor-latin; mso-hansi-font-family: Calibri; mso-hansi-theme-font: minor-latin; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">ঈশ্বরদী প্রেস ক্লাবের পাশে রয়েছে এই গণকবর। এই স্থানে একসঙ্গে ১৯ জনকে নৃশংসভাবে হত্যা করে গণকবর দেওয়া হয়।</span></p>
  • post-image
    জামে মসজিদ গণহত্যা
    <h1>১৯৭১ এর ১১ এপ্রিল থেকে পাকসেনা ও তাদের দোসররা ঈশ্বরদীতে বাঙালি নিধনে মেতে ওঠে। তাদের এ আগমনের কথা চারিদিকে ছড়িয়ে পড়লে ঈশ্বরদীর সাধারণ জনগণ একটু আশ্রয় ও নিরাপত্তার জন্য জামে মসজিদে আশ্রয় নেয়।</h1> <h1>কারণ তারা ভেবেছিলো পাকিস্তানি সৈন্যরা মুসলিম তাই মসজিদে অন্তত হামলা করবে না। কিন্তু পাকিস্তান হানাদার বাহিনী বাঙালি নিধন করতে ঈশ্বরদী জামে মসজিদেও হানা দেয় এবং প্রায় ৩০ জন নিরীহ নিরিস্ত্র বাঙালিকে হত্যা করে। ১২ এপ্রিল ১৯৭১ বিকেল বেলা ঘটে এ ঘটনা।&nbsp;</h1>
  • post-image
    পালবাড়ি গণহত্যা
    <p class="MsoNormal"><span style="font-family: 'Vrinda','serif'; mso-ascii-font-family: Calibri; mso-ascii-theme-font: minor-latin; mso-hansi-font-family: Calibri; mso-hansi-theme-font: minor-latin; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">পাকিস্তানি সেনাবাহিনী ঈশ্বরদী দখল করার দুদিন পর ১৩ এপ্রিল সকালে সবচেয়ে বড় গণহত্যা সংগঠিত হয় ঈশ্বরদীর কর্মকার পাড়ায় চন্দ্রকান্ত পালের পরিবারে। <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span>অবশ্য তার আগেই দুদিন ১১-১২ এপ্রিলে তার বাড়িতে ব্যপক লুটপাট করা হয়। <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span>আর ১৩ এপ্রিল বিহারীরা চন্দ্রকান্ত পাল</span>, <span style="font-family: 'Vrinda','serif'; mso-ascii-font-family: Calibri; mso-ascii-theme-font: minor-latin; mso-hansi-font-family: Calibri; mso-hansi-theme-font: minor-latin; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">তাঁর দু</span>&rsquo;<span style="font-family: 'Vrinda','serif'; mso-ascii-font-family: Calibri; mso-ascii-theme-font: minor-latin; mso-hansi-font-family: Calibri; mso-hansi-theme-font: minor-latin; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">পুত্র</span>, <span style="font-family: 'Vrinda','serif'; mso-ascii-font-family: Calibri; mso-ascii-theme-font: minor-latin; mso-hansi-font-family: Calibri; mso-hansi-theme-font: minor-latin; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">দু</span>&rsquo;<span style="font-family: 'Vrinda','serif'; mso-ascii-font-family: Calibri; mso-ascii-theme-font: minor-latin; mso-hansi-font-family: Calibri; mso-hansi-theme-font: minor-latin; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">পুত্রবধু ও ৬ নাতি-নাতনী ও একজন দোকান কর্মচারীসহ ২২ জনকে কুপিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span>সবাইকে বাড়ির কূপের মধ্যে ফেলে দেয়। </span></p>
  • post-image
    নূর মহল্লা বধ্যভূমি/ Nurmahalla Mass killing site
    <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;" lang="BN-BD">নুরমহল্লার খেলার মাঠ ছিল পাকিস্তানিদের অন্যতম গণহত্যার স্থান</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Mangal',serif; mso-ascii-font-family: Kalpurush; mso-hansi-font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: HI;" lang="HI">।</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;"><span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span><span lang="BN-BD">একাত্তরের নয়মাস এখানে অসংখ্য বাঙালিকে হত্যা করা হয়</span></span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Mangal',serif; mso-ascii-font-family: Kalpurush; mso-hansi-font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: HI;" lang="HI">।</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;"><span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp; </span><span lang="BN-BD">বাজারের মিষ্টি ব্যবসায়ী গৌরাঙ্গ পাল জানান</span>, <span lang="BN-BD">তার পরিবারের বেশ কয়েকজনকে হত্যা করে নূরমহল্লায় মাটিতে পুতে রাখা হলেও সেই স্থানগুলো নিশ্চিহ্ন হয়ে আছে</span></span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Mangal',serif; mso-ascii-font-family: Kalpurush; mso-hansi-font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: HI;" lang="HI">।</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Mangal',serif; mso-ascii-font-family: Kalpurush; mso-hansi-font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: HI;" lang="HI">***&nbsp;</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;" lang="BN-BD">The </span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;">playground<span lang="BN-BD"> of</span></span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;">Nurmahalla was one of the <span lang="BN-BD">main </span>killing sites of <span lang="BN-BD">the </span>Pakistani<span lang="BN-BD"> army</span>.<span lang="BN-BD"> Several </span>Bengalis were killed here during the nine<span lang="BN-BD"> months liberation war</span>. Businessman Gauranga Pal said<span lang="BN-BD">,</span> many of his family<span lang="BN-BD"> members</span> were killed and buried in the ground of Nurmahalla, but those places have bee<span lang="BN-BD">n completely eradicated</span>.</span></p>
  • post-image
    লোকসেড গণহত্যা
    <p class="MsoNormal"><span style="font-family: 'Vrinda','serif'; mso-ascii-font-family: Calibri; mso-ascii-theme-font: minor-latin; mso-hansi-font-family: Calibri; mso-hansi-theme-font: minor-latin; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">১২ এপ্রিল থেকে ঈশ্বরদীতে ব্যপক হত্যাযজ্ঞ শুরু হয়। <span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span>পাকিস্তানি সৈন্যবাহিনীর ছত্রছায়ায় থেকে বিহারীরা ১২-১৩ এপ্রিল ঈশ্বরদী রেলওয়ের লোকশেড এলাকায় অসংখ্য বাঙালিকে অত্যান্ত নৃশংসভাবে কুপিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে।<span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp; </span>৭৭ প্রাথমিক হত্যাযজ্ঞে এখানে আজিজুল গনি</span>, <span style="font-family: 'Vrinda','serif'; mso-ascii-font-family: Calibri; mso-ascii-theme-font: minor-latin; mso-hansi-font-family: Calibri; mso-hansi-theme-font: minor-latin; mso-bidi-font-family: Vrinda; mso-bidi-language: BN;" lang="BN">আ বারী সহ প্রায় ৩০-৩৫ জন শহিত হন।</span></p>
  • post-image
    রেলওয়ে কলোনি পাম্প হাউজ বধ্যভূমি/ Railway Colony Pump House Mass killing Site
    <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;" lang="BN-BD">ঈশ্বরদী উপজেলার রেলওয়ে কলোনি অর্থাৎ লোকোশেড পাম্প হাউজ স্টেশনের কাছে একটি বধ্যভূমি রয়েছে</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Mangal',serif; mso-ascii-font-family: Kalpurush; mso-hansi-font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: HI;" lang="HI">।</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;"><span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp; </span><span lang="BN-BD">এখানে হত্যার জন্য গুলির পরিবর্তে ধারালো তরবারি বা ধারালো অস্ত্র ব্যবহার করা হয়েছে</span></span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Mangal',serif; mso-ascii-font-family: Kalpurush; mso-hansi-font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: HI;" lang="HI">।</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;"><span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp; </span><span lang="BN-BD">রেলওয়ের এই পরিত্যাক্ত পাম্প হাউজে কত বাঙ্গালিকে যে জবাই করে হত্যা করা হয়েছে তার কোন সুনির্দিষ্ট হিসাব পাওয়া যাবে না</span></span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: 'Mangal',serif; mso-ascii-font-family: Kalpurush; mso-hansi-font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: HI;" lang="HI">।&nbsp;</span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;"><span lang="BN-BD"><em>পূর্বদেশ</em> পত্রিকার রিপোর্টে দেখা যায়, এখানে ১৯৭২ সালেই গাদা গাদা মানুষের হাড় ও চাপ চাপ রক্ত লেগে রয়েছে।&nbsp;</span></span><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;"><span style="mso-spacerun: yes;">&nbsp;</span></span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;">&nbsp;</p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;">***</span></p> <p class="MsoNormal" style="text-align: justify;"><span style="font-size: 14.0pt; line-height: 115%; font-family: Kalpurush; mso-bidi-language: BN-BD;">There is a <span lang="BN-BD">mass killing site </span>near Ishwardi Upazila <span lang="BN-BD">R</span>ailway <span lang="BN-BD">C</span>olony<span lang="BN-BD">. </span>Instead of bullets<span lang="BN-BD">, </span>sharp swords or weapons<span lang="BN-BD"> had been used here</span> for slaughtering. There is no exact account of how many Bengalis were slaughtered in this abandoned <span lang="BN-BD">R</span>ailway <span lang="BN-BD">P</span>ump house, though a report of the&nbsp;<em>Daily&nbsp;</em><em><span lang="BN-BD">Purbadesh </span></em><span lang="BN-BD">claimed that,&nbsp;&nbsp;</span><span lang="BN-BD">there were pile of blood and bones still in 1972.&nbsp;</span></span></p>
  • post-image
    ভূতেরগাড়ি গণহত্যা
    <h1>১৯৭১ সালের ১৬ এপ্রিলের ঘটনা। পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী রাজাকার প্রধান মতিউর রহমান নিজামীর সহযোগিতায় পাবনা জেলার ঈশ্বরদী উপজেলার ভূতেরগাড়ি গ্রামে আক্রমণ করে। প্রায় ১০জন নিরিহ বাঙালিকে গুলি করে হত্যা করে।</h1>
  • post-image
    পতিলাখালী গ্রাম গণহত্যা
    <h1>১৯৭১ সালের এপ্রিল মাসের ১৬ তারিখ পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী ও রাজাকারদের মিলিত দল পাতিলাখালী গ্রামের আয়েস ফকির, পিতা- জুব্বার ফকির, রিজুসরদার, পিতা-সবরাজ, নারিচা গ্রামের কুলসুম বেওয়া সহ উক্ত এলাকার আরও অনেক লোককে গুলি করে হত্যা করে এবং তাদের বাড়িঘর লুটকরে আগুন ধরিয়ে দেয়।&nbsp;</h1> <h1>&nbsp;</h1> <h1>এদিনের গণহত্যায় পরোক্ষভাবে সহোযগীতা করেছিলেন কুখ্যাত ঘাতক মতিউর রহমান নিজামী।</h1>
  • post-image
    আড়পাড়া গণহত্যা
    <h1>&nbsp;</h1> <h1>একাত্তরের ১৬ এপ্রিল বেলা অনুমান ১১ টা থেকে সাড়ে ১১ টার সময় মতিউর রহমান নিজামীর সহযোগিতায় পাবনা জেলার ঈশ্বরদী থানার আড়পাড়া গ্রামে একযোগে আক্রমণ করে গ্রামের নিরীহ নিরস্ত্র হাফেজ ওমর আলীসহ ১৯ জনকে গুলি করে হত্যা করে এবং তাদের বাড়িঘর লুট করে আগুন ধরিয়ে দেয়।</h1> <h1>&nbsp;</h1>